Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    এবার চাকরি গেল ডবলমুরিং থানার এসআই হেলালের

    তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর এসআই হেলালের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করা হয়

    দিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ চট্টগ্রাম নগরীর আগ্রাবাদের বাদামতলী এলাকায় এক কিশোরের আত্মহত্যা'র ঘটনায় পুলিশের এসআই হেলাল খানকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। তিনি সিএমপির ডবলমুরিং থানায় কর্মরত ছিলেন।

    মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) এসআই হেলালকে চাকরিচ্যুত করা হয়। এর আগে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছিল।তার বিরুদ্ধে হয়েছিল বিভাগীয় মামলা।

    নগরীর আগ্রাবাদের বড় মসজিদ এলাকায় কিশোর সালমানের আত্মহত্যা'র ঘটনার পর এসআই হেলালকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এরপর চট্টগ্রাম পুলিশ কমিশনারের নির্দেশে গঠন করা হয় তদন্ত কমিটি। নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার (পশ্চিম) মনজুর মোরশেদকে প্রধান করে গঠিত এই তদন্ত কমিটি ১৮ পৃষ্ঠার প্রতিবেদন জমা দেয় গত ২০ জুলাই।

    তদন্ত প্রতিবেদনে উঠে আসে, এসআই হেলাল খান ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে না জানিয়েই সাদা পোশাকে সোর্স নিয়ে ওই কিশোরের আগ্রাবাদের বড় মসজিদ গলির বাড়িতে গিয়েছিলেন। সেখানে গিয়ে তিনি কিশোর সালমান ইসলাম মারুফের পরিবারের সদস্যদের মারধর এবং তাকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করেছিলেন বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। ওই তদন্ত প্রতিবেদনে এসআই হেলালকে বরখাস্ত করার সুপারিশ করা হয়। এ ঘটনায় ডবলমুরিং থানার ওসি সদীপ কুমার দাশের তদারকির ‘ঘাটতি ছিল’ বলে উল্লেখ করে তাকেও কারণ দর্শাতে বলা হয়।

    তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর এসআই হেলালের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করা হয়। সেখানেও অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় এসআই হেলাল চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

    প্রকাশিত: বুধবার, ০৭ অক্টোবর, ২০২০


    Post Top Ad