Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    ১ কোটি টাকা জরিমানা করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কে সৌদি সরকার।

    প্রতিনিয়ত লোকসানের সম্মুখীন হয়ে এমনিতেই বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এ-র বেহাল দশা এবং করোনা মহামারীর প্রার্দুভাবের কারণে  গত চার মাস ধরে বেশীরভাগ রুটে আন্তাজাতিক ফ্লাইট বন্ধ থাকায় বেশ লোকসানের সম্মুখীন হতে হচ্ছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।

    পৃথিবীর  বিভিন্ন দেশে করোনার কারণে চলছে নিষেধাজ্ঞা।   

    এ-র মধ্যে হঠাৎ করেই আরও একটি দুঃসংবাদ এলো। করোনার মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ফ্লাইট পরিচালনা করার অপরাধে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সকে  সাড়ে চার লাখ জরিমানা করেছে সৌদি বিমানবন্দর কতৃপক্ষ। যা বাংলাদেশী টাকায় এক কোটি এক লাখ চুয়াত্তর হাজার টাকা।   

    মহামারি করোনার কারণে সারা বিশ্ব যখন স্বাস্থবিধি মেনে চলার জন্য বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে তখন বাংলাদেশ সারা বিশ্বের কাছে নিজেদের অপরাধ প্রমান করে চলছে। কাদের অবহেলার কারনে  এমন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সকে এমন জরিমানা গুনতে হচ্ছে এবং কাদের অপরাধে বিশ্বের কাছে বাংলাদেশের ভাবমুত্তি  ক্ষুন্ন হচ্ছে।   

    জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহে করোনা প্রার্দুভাবের মধ্যে বিমানের যে বিশেষ ফ্লাইটটি সৌদি আরবে এসেছিল প্রবাসীদের বহন করে নিয়ে যাওয়ার জন্য সেই ফ্লাইটটি স্বাস্থ্যবিধি মেনে জীবাণুনাশক স্প্রে না কারার কারণে সৌদি বিমানবন্দর কতৃপক্ষ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সকে এ জরিমানা করা হয়েছে বলে জানা যায়।
    গত ১১ই জুলাই বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এ-র পরিচালক (প্রশাসন) জিয়া উদ্দিন আহমেদ  এক অফিসিয়াল বিবৃতিতে জানিয়েছেন

    বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এ-র ব্যবস্থাপক গ্রাউন্ড সার্ভিস মোঃ গোলাম সারওয়ার কে আহবায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির অপর দুই সদস্য হলেন, উপ-ব্যবস্থাপক   প্রনব কুমার বড়ুয়া, এবং নিরাপত্তা সহকারী ব্যবস্থাপক মোঃ মাসুদুর হাসান। তদন্ত কমিটিকে আগামী ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে, কাদের কারণে এবং অবহেলায় এমন জরিমানা গুনতে হচ্ছে তার সঠিক তদন্ত করে রিপোর্ট প্রদান করতে বলা হয়েছে।                                       

    বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কতৃপক্ষের অন্য এক কর্মকতা বলেছেন  ঘটনাটি ২০১৭ সালের, অনেকে মনে করছেন  ঘটনাটিকে ২০১৭ সালের হলে এতে বছর পরে কেন তদন্ত কমিটি গঠন করা হলো।  তবে এ-ই ঘটনাটি কবে কখন হয়েছিল এ ব্যাপারে সঠিক তথ্য জানা যায়নি। সৌদি আরবে অবস্থানরত প্রবাসীরা মনে ঘটনাটি যখনই ঘটুক না কেন, ভবিষ্যতে যেন এরকম ঘটনার পূণরাবৃত্তি না হয় তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত দোষীদেরকে শাস্তির আওতায় এনে যেন দেশের ভাবমূর্তি পূর্ণরুদ্ধার করা হয়।

    প্রকাশিত: বুধবার, ১৫ জুলাই, ২০২০

    Post Top Ad