Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    মীরসরাইয়ে ভুয়া শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সেজে ভাতা ভোগের অভিযোগ

    মীরসরাইয়ে ভুয়া শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সেজে ভাতা ভোগের অভিযোগ
    মোঃ হাসানঃ- চট্টগ্রাম জেলার মীরসরাই উপজেলার মায়ানী ইউনিয়নের একজন তৎকালীন ইপিআর সদস্য ছুটিতে থাকা অবস্থায় মুক্তিযুদ্ধ শুরু হওয়ার আগেই মার্চের শুরুতে মীরসরাই খাদ্য গুদামের চাল চুরি করতে গিয়ে খাদ্য গুদামের বস্তার নিচে পড়ে পদদলিত হয়ে মৃত্যু বরণ কারার পর শহীদ মুক্তিযুদ্ধা নাম লিখিয়ে ভাতা ও সকল প্রকার সরকারি সুযোগ সুবিধা ভোগের অভিযোগ উঠেছে এক ব্যক্তির উপর।

    ‘ভূয়া শহীদ  মুক্তিযুদ্ধা’ দাবি করে ‘কথিত শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান নুরুল হুদার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ এনে মুক্তিযুদ্ধা মন্ত্রণালয় বরাবরে ডাকযোগে একটি অভিযোগ প্রেরণ করেন এলাকার সচেতন মানুষ। 

    অভিযোগে তারা উল্লেখ করেন- চট্টগ্রাম জেলার মীরসরাই  উপজেলার ১৩ নং মায়ানী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মধ্যম মায়ানী গ্রামের মনির আহমদ মুক্তার বাড়ির রহিম উল্লাহর পূত্র গোলাম রব্বানী মুক্তিযুদ্ধ শুরু হওয়ার প্রাক্কালে মীরসরাইয়ের পশ্চিম পাশে তালবাড়িয়ায় খাদ্য গুদামের চাল লুট করতে যায় শতশত জনতা ঐ সময়ে ইপিআর এ কর্মরত গোলাম রব্বানী ছুটিতে বাড়ি থাকায় সে সহ ঐ লুটপাটে অংশনিতে গেলে গুদামঘরে রক্ষিত চাউলের বস্তার নিচে পড়ে গেলে পদদলিত হয়ে সেখানে মৃত্যু হয় গোলাম রব্বানীর।


    পরবর্তীতে শহীদ মুক্তিযুদ্ধা হিসেবে নাম লিখিয়ে সরকারি সুযোগ সুবিধা ভাতা ভোগ করছেন তার কথিত একমাত্র সন্তান পরিচয় দানকারী নুরুল হুদা।

    অথচ এই নুরুল হুদা মীরসরাই উপজেলার আবুতোরাব বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় হতে ১৯৯১ সালে এসএসসি পাস করে যেখানে তার জন্ম সাল ১৯৭৬ উল্লেখ রয়েছে। অর্থাৎ গোলাম রব্বানীর মৃত্যুর ৪/৫ বছর পর এই নুরুল হুদার জন্ম হয়। তাহলে সে কি করে শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হয়। তাছাড়া এই নুরুল হুদা ১৯৯৬ সালে মীরসরাইতে একটি ক্ষুদ্র ঋন প্রকল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে ১৯৯৮ সালে অসহায় হত দরিদ্র মানুষের প্রায় দশ লক্ষ টাকা সঞ্চয় হস্ত মজুদ করে এলাকা ছেড়ে ঢাকায় চলে যায়। তারপর ঢাকায় বসে বিভিন্ন চেষ্টা তদবির করে গোলাম রব্বানী কে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা বানিয়ে তাকে সন্তান সাজিয়ে অদ্যাবদি সরকারি সুযোগ সুবিধা ও ভাতা ভোগ করে অাসছে। উল্লেখ্য গোলাম রব্বানীর মৃত্যুর পর তার স্ত্রী পাশ্ববর্তী ইউনিয়ন সাহেরখালীতে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে ছিলেন বর্তমানে তিনিও বেঁচে নেই।

    এদিকে এই চতুর নুরুল হুদা ঢাকায় মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়, মুক্তিযুদ্ধ কল্যাণ ট্রাষ্ট ও জামুকায় বিভিন্ন জনকে মুক্তিযোদ্ধা বানানো সহ নানারকম তদবির দালালি করে বেড়াচ্ছে। 

    বিষয়টি মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়,দুদক ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের  প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের দাবী এলাকার সচেতন মহলের।



    প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ০৫ মে, ২০২০

    Post Top Ad