Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    করোনা সংক্রমন রোধে দিঘলকান্দি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগ


    মুকুল, বাগমারা প্রতিনিধিঃ- রাজশাহীর বাগমারায় মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমন থেকে শ্রীপুর ইউনিয়নবাসীকে বাঁচাতে সার্বক্ষণিক কাজ করে চলেছে দিঘলকান্দি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক জিল্লুর রহমানের দিক নির্দেশনায় অর্ধশতাধিক স্বেচ্ছাসেবী করোনার বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছে।

    শ্রীপুর ইউনিয়নে কেউ প্রবেশ করলে বা ইউনিয়ন থেকে বের হতে গেলে জীবাণুমুক্ত হয়েই বের হতে হচ্ছে। আর এই জীবাণু নাশক স্প্রে করার কাজটি করছেন দিঘলকান্দি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা।

    ইউনিয়নের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার মোড়ে অবস্থান করছেন তারা। হাতে গ্লোভস আর মুখে মাস্ক পরে সংগঠনের টি-শার্ট পরিহিত অবস্থায় থাকছেন সবাই। হেঁটে কিংবা যানবাহনে যে ভাবেই চলাচল করেন না কেন, তাদের জীবাণ নাশক স্প্রে করছেন সংগঠনের সদস্যরা। পাশাপাশি গ্রামের মোড়ে মোড়ে বালতি এবং ড্রামে পানি রাখা হয়েছে। সেই পানি দিয়ে হাত ধোয়ার কাজ করছে লোকজন।

    সেই সাথে শ্রীপুর ইউনিয়নের কোন বাড়িতেই করোনা ভাইরাস সংকটকালীন আত্মীয় স্বজন আসতে পারবে না বলেও বাড়ি বাড়ি প্রচার চালানো হচ্ছে সংগঠনের পক্ষ থেকে। দিনের বেলায় রাস্তার লোকজন সহ যানবাহনে জীবাণু নাশক স্প্রে করলেও সন্ধ্যার পর তারা বেরিয়ে পড়েন মানুষের বাড়ি বাড়ি। সেখানে গিয়ে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় কি কি করণীয়, সে সকল বিষয় সম্পর্কে লোকজনের মাঝে ধারণা প্রদান করা হয়। বর্তমানে কোন লোকজন বাইরে থেকে এলে তাদেরকে ফিরিয়ে দেয়া হচ্ছে।

    গত ৭ এপ্রিল থেকে করোনা সংকট মোকাবেলায় স্বেচ্ছায় এই কাজটি করছে ইউনিয়নের যুবক এবং শিক্ষিত এক ঝাঁক তরুণ। যাদের এই সময় ঘরে বা বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত থাকার কথা। তারা সেটা না করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ইউনিয়নবাসীকে বাঁচাতে রাস্তায় অবস্থান করছে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যদের পাশে এসে আজ রবিবার (১৯ এপ্রিল) করোনায় নিরাপত্তা সামগ্রী হ্যান্ড গ্লোভস এবং মাস্ক তুলে দিয়েছেন ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বাগমারা আসনের সংসদ সদস্যের প্রেসসচিব প্রভাষক জিল্লুর রহমান।

    যারা স্বেচ্ছায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ রকম কাজ করতে পারে, তাদের পাশে দাঁড়াতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করেন প্রভাষক জিল্লুর রহমান। তিনি বলেন, এ কাজ করতে গেলে অনেক কিছুই ত্যাগ করে সামনে এগিয়ে যেতে হয়। সেই সাথে অনেক অর্থেরও প্রয়োজন। তাই সামর্থ্যবানদের সংগঠনের পাশে এগিয়ে আসা প্রয়োজন।

    দিঘলকান্দি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সভাপতি ইনসান আলী, সাধারণ সম্পাদক মোতালিব হোসেন ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা মহামারি এই করোনা সংকট চলাকালে রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী লোকজন সহ সকল যানবাহনকে স্বেচ্ছায় জীবাণুমুক্ত করতে জীবাণুনাশক স্প্রে করে যাবো। সেই সাথে বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনা থেকে রক্ষায় সচেতনতামূলক প্রচার অব্যাহত থাকবে। যেহেতু আমরা বেকার এবং স্বেচ্ছায় ঝুঁকি নিয়ে কাজটি করছি এবং এতে অনেক অর্থেরও প্রয়োজন হয়, তাই বিত্তবানদের সার্বিক সহযোগিতা পেলে কাজটি চালিয়ে যাওয়া অনেক সম্ভব হবে।



    প্রকাশিত: সোমবার, ২০ এপ্রিল, ২০২০

    Post Top Ad