• সর্বশেষ আপডেট

    তরুণীদের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করে অর্থ আত্মসাৎ করতো মামুন



    কখনও সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, কখনও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সহকারী উপ-সচিব আবার কখনও প্রশাসনিক কর্মকর্তা, ব্যাংক কর্মকর্তা ও ইঞ্জিনিয়ার পরিচয় দিয়ে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করতেন গ্রিল ওয়ার্কশপের কর্মচারী মামুন ওরফে মমিনুল ইসলাম (৩০)।

    দিনাজপুর জেলার খানসামা থানা এলাকার আমতলী বাজার থেকে বুধবার (৩১ আগস্ট) প্রতারণার এসব অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করে অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।


    বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর মালিবাগ সিআইডির প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার এস এম আশরাফুল আলম।


    তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে সরকারি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের মুখে মাস্ক পরা বিভিন্ন সময়ের ছবি নিজের বলে ব্যবহার করে তরুণীদের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক স্থাপন করতো। একপর্যায়ে তরুণীদের বিয়ের প্রস্তাব দিতো এবং দ্রুত বিয়ে করতে চাইতো। ভুক্তভোগীরা বিয়ের প্রস্তাবে সাড়া না দিলে মামুন আত্মহত্যা করবে বলে ইমোশনাল ব্ল্যাকমেইল করতো। এভাবে বিয়ের ফাঁদে ফেলে তরুণীদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎ করতো।

    তিনি আরও জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক তরুণীর সঙ্গে ভুয়া বিয়ে সম্পন্ন করে মামুন। তারা কিছুদিন একসঙ্গে থাকে। দুজন আলাদা হলে মামুন তাকে আপত্তিকর অবস্থায় মোবাইলে ভিডিও কলে আসতে বলতো। একসময় মামুন তরুণীর আপত্তিকর দৃশ্যের ভিডিও ও স্ক্রিনশট রেখে দিত। পরে এসব অনলাইনে ও বিভিন্ন মাধ্যমে প্রকাশ করে দেবে বলে হুমকি দিয়ে অর্থ আত্মসাৎ করেছে।
    প্রকাশিত বৃহস্পতিবার ০১ সেপ্টেম্বর ২০২২

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad