Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    ৯৮০ ভোটে এগিয়ে ছিলাম, শেষ মুহূর্তে ফল পাল্টে দেওয়া হয়েছে

     

    কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করেছেন স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু। ফল ঘোষণার পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ফল প্রত্যাখ্যান করেন তিনি।মনিরুল হক সাক্কু বলেন, ‌‘আমার হিসাবে ৯৮০ ভোটে এগিয়ে ছিলাম। 

    শেষ মুহূর্তে ফল পাল্টে দেওয়া হয়েছে। ষড়যন্ত্র করে আমাকে হারানো হয়েছে। ভোট পুনরায় গণনার জন্য আমি আদালতে রিট করবো, আইনি ব্যবস্থা নেবো।’ তিনি বলেন, ‘ইভিএমে ভোটগ্রহণ হলো। কিন্তু ফল ঘোষণা করতে এত দেরি হলো কেন? ১০১ কেন্দ্রের ফল ঘোষণার পর বিশৃঙ্খলা ও হট্টগোল তৈরি করা হলো কেন? তখন পর্যন্ত আমি ভোটে এগিয়ে ছিলাম। 

    পরে চার কেন্দ্রের ভোট নিয়ে ষড়যন্ত্র করে নৌকার প্রার্থীকে জয়ী ঘোষণা করা হয়েছে।’বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহেদুন্নবী চৌধুরী জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে এ ফল ঘোষণা করেন।ঘোষিত ফল অনুযায়ী, নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত পেয়েছেন ৫০ হাজার ৩১০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মনিরুল হক সাক্কু পেয়েছেন ৪৯ হাজার ৯৬৭ ভোট। মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী অন্য তিন প্রার্থী মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন কায়সার ঘোড়া প্রতীকে ২৯ হাজার ৯৯, রাশেদুল ইসলাম হাতপাখায় তিন হাজার ৪০ ও কামরুল আহসান বাবুল হরিণ প্রতীকে দুই হাজার ৩২৯ ভোট পেয়েছেন।রিটার্নিং কর্মকর্তার দফতর সূত্রে জানা যায়, নির্বাচনে মোট দুই লাখ ২৯ হাজার ৯২০ ভোটার ছিলেন। এর মধ্যে এক লাখ ৩৫ হাজার ৬৪টি ভোট পড়ে। তবে বাতিল হয় ৩১৯ ভোট। ভোট পড়েছে ৫৮.৭৪ শতাংশ। মোট ১০৫টি কেন্দ্রের ৬৪০টি কক্ষে ভোটগ্রহণ হয়েছে। নির্বাচনে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১০৬ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।  এর আগে সকাল ৮টা থেকে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডের ১০৫ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। বিকাল ৪টায় ভোটগ্রহণ শেষ হয়।

    প্রকাশিত: বুধবার ১৫ জুন ২০২২

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad