Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    শীতলক্ষ্যায় যাত্রীবাহী লঞ্চকে ডুবিয়ে দেওয়া জাহাজটি সিটি গ্রুপের

     
    নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীর চর সৈয়দপুর এলাকায় যাত্রীবাহী লঞ্চডুবির ঘটনায় ধাক্কা দেওয়া এমভি রূপসী-৯ নামের কার্গো জাহাজটি সিটি গ্রুপের। মালিকপক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, জাহাজ, মাস্টার ও চালকের সব কাগজপত্র ঠিক আছে। তবে এসব কাগজপত্র খতিয়ে দেখবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

    রবিবার (২০ মার্চ) রাতে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম এ খবর নিশ্চিত করে বলেন, ‘ঘাতক জাহাজের মালিক পক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। তাদের দিক থেকে দাবি করা হয়েছে, জাহাজের কাগজপত্র সব ঠিক আছে। জাহাজের মাস্টার ও চালকেরও কাগজপত্রও সব ঠিক আছে বলে তারা দাবি করেছে।

     তবে আমরা সেগুলো খতিয়ে দেখবো; আটক মাস্টার ও ড্রাইভারের জবানবন্দি নেবো। তাহলেই সব স্পষ্ট হবে।’এদিকে, ঘাতক জাহাজটি মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া থেকে আটক করা হয়েছে। নৌ-পুলিশের নারায়ণগঞ্জ অঞ্চলের পুলিশ সুপার মীনা মাহমুদা তথ্য নিশ্চিত করে জানান, চালকসহ জাহাজে উপস্থিত সব ক্রুদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। তবে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দুর্ঘটনায় যাদের জড়িত পাওয়া যাবে তাদের গ্রেফতার করা হবে। 

    রবিবার সন্ধ্যার আগেই জাহাজটি আটক করে নৌ-পুলিশ।এদিকে, লঞ্চডুবির ঘটনা নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। এ বিষয়ে কমিটির সদস্য, নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, জাহাজে মোট ১৪ জন ক্রু ছিলেন।
    তিনি জানান, আজ তদন্ত কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। আগামীকাল এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও তদন্ত করে প্রতিবেদন দেবে। আর প্রথমেই জাহাজটির বিরুদ্ধে মামলা হবে।

     তবে মামলাটি নৌ-পুলিশ করবে নাকি বিআইডব্লিউটিএ করবে এ বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি। নৌ-পুলিশ এখন আটকদের জিজ্ঞাসাবাদ করছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ওই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

    এক প্রশ্নের জবাবে রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘জাহাজটি আসলে দায়িত্বপ্রাপ্ত মাস্টার, চালকই চালাচ্ছিলেন কি-না তা প্রাথমিকভাবে জানা যায়নি। তবে যদি মাস্টার, চালকের পরিবর্তে অন্য কেউ চালিয়ে থাকে সেটি তদন্তে বেরিয়ে আসবে।

    দুপুরে কার্গো জাহাজ এমভি রূপসী-৯ এর ধাক্কায় যাত্রীবাহী লঞ্চ এমএল আফসারউদ্দিন ডুবে যায়। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ছয় জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এখনও বেশ কয়েকজন নিখোঁজ রয়েছেন বলে দাবি করছেন স্বজনরা। তাদের উদ্ধারে কাজ করছেন উদ্ধারকর্মীরা।



    প্রকাশিত: রবিবার ২০ মার্চ ২০২২

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad