• সর্বশেষ আপডেট

    চুয়াডাঙ্গায় বখাটের উত্ত্যক্তের জেরে মাদরাসাছাত্রীর আত্মহত্যা

     

    চুয়াডাঙ্গায় গলায় ফাঁস দিয়ে মাসুমা খাতুন নামের এক মাদরাসাছাত্রীর আত্মহত্যা করেছে। রবিবার (২০ মার্চ) বিকেল ৫টার দিকে চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার হকপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

    অভিযোগ উঠেছে, এক বখাটের অপমান ও উত্ত্যক্ত সহ্য করতে না পেরেই আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছেন মাসুমা। এ ঘটনায় রবিবার রাতে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলা দায়ের করেছেন মেয়েটির বাবা।

    মাসুমা খাতুন স্থানীয় রেলবাজার আলিয়া মাদ্রাসার প্রথম বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। তিনি হকপাড়ার চা দোকানি আমিনুল ইসলামের মেয়ে।
    পরিবারের সদস্যরা জানায়, রবিবার বিকালে বাড়িতে কেউ না থাকায় গলায় ওড়না দিয়ে ফাঁস দেন মাসুমা। পরে তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

    চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. উৎপলা বিশ্বাস জানান হাসপাতালে নেয়ার আগেই মারা যান মাসুমা।
    নিহতের বাবা আমিনুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, ‘শহরের আরামপাড়ার মোবারক হোসেনের ছেলে আবুল কালাম প্রায়ই আমার মেয়েকে উত্ত্যক্ত করতো। শুক্রবার সকালে রেলস্টেশন সংলগ্ন চায়ের দোকান পরিষ্কার করতে যায় আমার মেয়ে মাসুমা।

     সেখানে মেয়েকে একা পেয়ে কালাম আবারও উত্ত্যক্ত করতে শুরু করে। সেসময় আমার মেয়েকে কুপ্রস্তাব দেয় কালাম। রাজি না হওয়ায় তাকে মারধর করে। বিষয়টি এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে তারা সালিশের কথা বলেন। কিন্তু গত দুই দিনেও হয়নি সেই সালিশ।

    চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন জানান, নিহত মাদরাসাছাত্রীর মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। পরে মরদেহটি ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। এ ঘটনা রাতেই নিহতের বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলা দায়ের করেছেন।

    ওসি আরও জানান, ঘটনার পর বাড়ি থেকে পালিয়েছে অভিযুক্ত বখাটে যুবক ও তার পরিবার। তাদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান চলছে।


    প্রকাশিত: সোমবার ২১ মার্চ ২০২২

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad