Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    আপন দুই ভাগনিকে ঘরে ডেকে গলা কেটে হত্যা করলেন তরুণ

     


    ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে বাড়ির সবাই সকালের খাবার খেতে অন্য ঘরে ছিলেন। এ সুযোগে ঘরে ডেকে এনে আপন দুই ভাগনিকে গলা কেটে হত্যা করেছেন মামা। 

    আজ সোমবার বেলা ১১টার দিকে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের পশ্চিম কাজির বলসা গ্রামে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটে। এ ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে যান ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি মো. আব্দুল কাদের মিয়াসহ থানা পুলিশ। নিহত দুই শিশুর নাম জাকিয়া হাসান সায়মা (৫) ও তৃপ্তিমনি (৪)। ঘটনার পর শিশু দুটির মামা মাহাবুবকে (২০) স্থানীয় লোকজন আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

     মাহাবুব ওই এলাকার মৃত আব্দুস সালামের  ছেলে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, দুই শিশুর মধ্যে একজন নান্দাইল উপজেলার কাদিরপুর গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের একমাত্র মেয়ে তৃপ্তি, অপরজন নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলার জাকিরুল হাসান রাজিবের একমাত্র মেয়ে সায়মা। তারা সম্পর্কে খালাতো বোন। কিছুদিন আগে তাদের মা সালমা এবং হালিমার সঙ্গে নানার বাড়িতে বেড়াতে আসে।

     নিহত দুই শিশুর নানার বাড়িতে শোকের মাতম।  সকালে শিশু সায়মা এবং তৃপ্তি বাড়ির পাশেই খেলছিল। এমন সময় তাদের মামা মাহাবুব দু’জনকে ঘরে ডেকে নিয়ে যান। ঘরে থাকা দা দিয়ে দুই ভাগনির গলা কেটে হত্যা করেন তিনি। এ সময় ঘরের ভেতর থেকে চিৎকারের শব্দ পেয়ে অপর ঘরে থাকা বাড়ির লোকজন এবং স্থানীয়রা এগিয়ে এসে মাহাবুবকে আটক করে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুই ভাগনিকে হত্যার কিছুক্ষণ আগে বাড়ির পাশের মাদ্রাসার এক ছাত্রের ঘাড়ে কোদাল দিয়ে আঘাত করে বাড়িতে আসেন মাহাবুব। 

    আহত সেই ছাত্রের নাম তাওহীদ (১৫)। সে ধনিয়াকান্দি গ্রামের কামাল হোসেনের ছেলে। আহত তাওহীদ বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। 

    প্রকাশিত: রবিবার ০৭ মার্চ ২০২২

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad