Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    স্ত্রীসহ ‘গরিবের ডাক্তার’কে হত্যা, এলাকাবাসীর মানববন্ধন

      

    কুমিল্লার সুবর্ণপুরে পল্লী চিকিৎসক সৈয়দ বিল্লাল হোসেন ও সফুরা খাতুন দম্পতি হত্যায় পুত্রবধূসহ জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৪টায় এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

    গত ৫ সেপ্টেম্বর মধ্যরাতে কুমিল্লার সুবর্ণপুরের নিজ বাড়িতে খুন হন পল্লী চিকিৎসক সৈয়দ বিল্লাল হোসেন ও তার স্ত্রী সফুরা খাতুন। চাঞ্চল্যকর এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই উদ্ঘাটন করে পুলিশ। গ্রেফতার করা হয় হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী পুত্রবধূ নাজমুন নাহার চৌধুরী ওরফে শিউলি এবং তার দুই সহযোগী জহিরুল ইসলাম সানি ও মেহেদী হাসান তুহিনকে। পরে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ার পর তাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়।

    মানববন্ধনে সুবর্ণপুর, বাড়াইপুর, জালুয়াপাড়াসহ আশপাশের এলাকার অসংখ্য মানুষ অংশগ্রহণ করেন। উপস্থিত এলাকাবাসী বলেন, ‘পল্লী চিকিৎসক বিল্লাল হোসেন ও তার স্ত্রী সফুরা খাতুন অত্যন্ত ভালো মানুষ ছিলেন। বিল্লাল হোসেনকে এলাকার মানুষ গরিবের ডাক্তার হিসেবে চিনতেন। তাদেরকে এমন নির্মমভাবে হত্যার বিষয়টি কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না।’ এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন এলাকাবাসী।

    আসরের নামাজের পর সুবর্ণপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে পৃথক দুই জানাজা শেষে নিহত দম্পতিকে বাড়ির পাশের কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। 

    স্থানীয়দের অভিযোগ, দীর্ঘ পারিবারিক কলহ ও পরকীয়ার জের ধরে পূর্ব পরিকল্পনা মতো দুই সহযোগীকে নিয়ে বৃদ্ধ শ্বশুর-শাশুড়িকে হত্যা করেছেন পুত্রবধূ শিউলি।

    পুলিশ বলছে, দীর্ঘদিনের জমে থাকা ক্ষোভ থেকেই এই খুন করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকা তিনজনকে গ্রেফতারের পর আদালতে তারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গিয়েছে। এরপর তিন খুনিকে পাঠানো হয়েছে কারাগারে।


    প্রকাশিত: বুধবার ০৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad