Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষ, গ্রেপ্তার ৫।

    মোঃ ইব্রাহিম নোয়াখালীঃ- নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌর শহরে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় চরএলাহী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানসহ অন্তত ৮ জন আহত হন। এ ঘটনায় পুলিশ আহত চেয়ারম্যানসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

    স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক যুবলীগের নেতাকর্মীরাসহ বসুরহাটে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে যোগ দিচ্ছে যাচ্ছিলেন। পথে হাসপাতাল এলাকায় আসলে আগে-পরে যাওয়া নিয়ে চরএলাহী আ.লীগ সভাপতি শাহাব উদ্দিন ও সেক্রেটারি গণির লোকজনের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে শাহাব উদ্দিন ও গণির লোকজন চেয়ারম্যান ও তার লোকজনের উপর হামলা করে। এতে আহত হয়েছেন- চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক, তার পক্ষের হোরণ, রাসেল, মো. রাব্বি, কালাম ও ফয়সালসহ ৮ জন। চেয়ারম্যান রাজ্জাক চরএলাহী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি।

    জানা যায়, ইউনিয়ন আ.লীগ নেতা শাহাব উদ্দিন ও গণির লোকজন লোহার রডসহ লাঠিসোঠা নিয়ে হামলা চালালে চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক স্থানীয় একটি ক্লিনিকে ডুকে পড়ে। এক পর্যায়ে হামলাকারীরা ওই ক্লিনিকের গ্লাস ভাংচুর করে সেখানে গিয়ে চেয়ারম্যান রেজ্জাকের মাথায় আঘাত করলে তার মাথা ফেটে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকেসহ আহতদেরকে উদ্ধার করে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

    কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহিদুল হক রনি বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। পরে আবদুল গণি চেয়ারম্যান রাজ্জাককে প্রধান আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করে। ওসি আরও বলেন, চেয়ারম্যানকে তারা গ্রেপ্তার করেনি। লোকজন চেয়ারম্যানকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

    প্রকাশিত: সোমবার, ০৪ জানুয়ারি, ২০২১

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad