Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    মহানগর যুবলীগে চরম গ্রুপিং, আলাদা কর্মসূচিতে চার যুগ্ম-আহ্বায়ক

    দিগন্ত ডেস্কঃ চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের গ্রুপিং চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চুর বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা ও দলীয় শৃঙ্খলা বহির্ভূত কর্মকাণ্ডের অভিযোগ এনে গত দুই মাস ধরে পৃথক কর্মসূচি পালন করে আসছেন চার যুগ্ম-আহ্বায়ক।

    বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) বিকেলে দারুল ফজল মার্কেটের দলীয় কার্যালয়ে মহানগর যুবলীগের ব্যানারে শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভার আয়োজন করেন মহানগর যুবলীগের চার যুগ্ম-আহ্বায়ক। পৃথক কর্মসূচি পালন করা চার যুগ্ম-আহ্বায়ক হলেন- ফরিদ মাহমুদ, দেলোয়ার হোসেন খোকা, মাহবুবুল হক সুমন ও দিদারুল আলম দিদার।

    চার যুগ্ম-আহ্বায়কের অভিযোগ- ২০১৩ সালে কমিটি গঠনের পর এক সঙ্গে সব অনুষ্ঠান আয়োজন ও কর্মসূচি গ্রহণ করে আসলেও গত এক বছর ধরে সংগঠনে স্বেচ্ছাচারিতা ও নিজের মতো করে কর্মসূচি পালন করছেন আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চু। তাদের মতামতকে তোয়াক্কা না করে সংগঠন পরিপন্থী কর্মকাণ্ডে যুক্ত ও সন্ত্রাসীদের আশ্রয় প্রশ্রয় দিচ্ছেন মহিউদ্দিন বাচ্চু। এ কারনে তারা আলাদা কর্মসূচি পালন করছেন।  


    মহানগর যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ বলেন, ২০১৩ সালে কমিটি গঠনের পর সবাই এক সঙ্গে সব অনুষ্ঠান আয়োজন ও কর্মসূচি গ্রহণ করেছি। কিন্তু গত একবছর ধরে আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চু আমাদের পাশ কাটিয়ে একা কর্মসূচি নিচ্ছেন। সংগঠনে স্বেচ্ছাচারিতা ও নিজের মতো করে কর্মসূচি পালন করছেন তিনি। তাকে বারবার বলেছি, কিন্তু তিনি সংশোধন হননি। এ কারনে আমরা চার যুগ্ম-আহ্বায়ক আলাদা প্রোগ্রাম করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।  

    যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকা  বলেন, আহ্বায়ক যখন আমাদের বাদ দিয়ে প্রোগ্রাম করছেন তখন আমরাও আলাদা প্রোগ্রাম করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বৃহস্পতিবার শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছি আমরা চার যুগ্ম-আহ্বায়ক। কিন্তু সেখানে উপস্থিত হয়ে প্রোগ্রাম ভণ্ডুল করে দেওয়ার চেষ্টা করেন আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চু। সংগঠনের বাইরের লোকজন এনে সেখানে স্লোগান দেন।

    তবে এসব অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চু। তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে কোনো বিভেদ নেই। মহানগর যুবলীগের প্রোগ্রাম ছিল তাই সেখানে গিয়েছি। তারা আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে থাকলে সেটা তারা ভালো বলতে পারবেন। করোনার সময় তারা ঘর থেকে বের হননি। তারা যদি বের না হন তাহলে আমি তো বসে থাকবো না। আমি আমার সাধ্যমতো সংগঠনের জন্য কাজ করেছি। করোনায় অসহায় মানুষের পাশে থেকেছি।  

    ২০১৩ সালে ১৩ জুলাই ১০১ সদস্যের চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় যুবলীগ। তিন মাসের জন্য করা এ আহ্বায়ক কমিটির মেয়াদ সাত বছর পার হয়েছে। তবুও সম্মলনের আয়োজন করতে পারেননি তারা। গত সাত বছরে পাঁচটি ওয়ার্ডে যুবলীগের কমিটি গঠন করে চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগ। তবে এসব কমিটিও কোনো সম্মেলন ছাড়াই সমঝোতার মাধ্যমে করা হয়েছে। 

    সূত্রঃ বাংলা নিউজ

    প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২০

    Post Top Ad