Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    মামলা তুলে নিতে বাদীকে হুমকি, আকবর শাহ থানার সেকেন্ড অফিসার এমদাদের বিরুদ্ধে।

    দিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ- চট্টগ্রাম নগরীর আকবর শাহ থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই এমদাদের বিরুদ্ধে আসামির পক্ষ নিয়ে বাদীকে হুমকি দেয়া, চাঁদাবাজি, মাদকবিক্রিতে সহযোগীতা সহ নানান অপকর্মের  অভিযোগ উঠেছে। নগর পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের কাছেও তার বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ জমা পড়েছে।

    তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী,  মাদক ব্যবস্যায়ী, হত্যা মামলার আসামীর সাথে সখ্যতা, মাদকবিক্রিতে সহযোগীতা, সাধারণ মানুষ  নির্জাতনের শিকার হয়ে সন্ত্রাসীদের নামে  মামলা করতে গেলে উলটা মামলা না করতে বা মামলা তুলে নিতে বাদীকে, মারধর অথবা গ্রেপ্তারের ভয় দেখিয়ে, থানা থেকে বের করে দেয়াসহ, পুলিশের এই, এস আই এমদাদ নিরীহ লোকজনকে হয়রানি করছেন।

    সম্প্রতি আকবর শাহ থানা এলাকার জি ব্লক ছড়ার পার এলাকায় মো. আরিফ নামের এক যুবকের উপর অতর্কিত  হামলা চালায় এলাকার চিহ্নিত কিছু সন্ত্রাসী।

    হামলার শিকার মো. আরিফ জানান, হামলাকারীদের নামে থানায় মামলা করতে গেলে, আকবর শাহ থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই এমদাদ, আমাকে  সারাদিন থানায় বসিয়ে রেখেও মামলা না নিয়ে রাতে থানা থেকে বের করে দেই। পরবর্তিতে পুলিশ হেডকোয়াটারে গিয়ে সহকারী কমিশনার আমেনা বেগমকে জানালে,  তিনি আকবর শাহ থানাকে মামলাটি নিতে নির্দেশ দেন, সহকারী কমিশনার  আমেনা বেগমের নির্দেশে মামলা নিলেও শুরু হয় আমার উপর অমানবিক নির্যাতন, এক পর্যায়ে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়। এক মাসের বেসি আমি এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি।
    মো. আরিফ আরো জানান, এস আই এমদাদ আমাকে বিভিন্ন মাধ্যমে মামলা তুলে নিতে অর্থের লোভ দেখিয়ে আসছে, এর পরও  যদি মামলা তুলে না নেই তাহলে  আমাকে বিভিন্ন মামলায় জড়িয়ে দিবে মর্মেও হুমকি প্রদান করে আসছে।

    মো. আরিফ আরো বলেন,  মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা  এস আই আলমগীর সাক্ষীর কথা বলে আমাকে ও আমার মাকে রাত ২টা পর্যন্ত থানায় বসিয়ে রাখে এক পর্যায় এর কারণ জানতে চাইলে তিনি জানান সেকেন্ড অফিসার আসা পর্যন্ত অপেক্ষাকর, এর পর সেকেন্ড অফিসার এমদাম এসে বলে তুই মামলা তুলে নিবি কিনা বল, যা খরচ লাগে আমি আসামী থেকে নিয়ে দিব, এর পর যদি মামলা না তুলিশ তোকে মাদক মামলায় ফাসিয়ে দিব।

    মো. আরিফ দিগন্ত নিউজকে বলেন আমি ও আমার পরিবারের জীবন হুমকির সম্মুখীন মনে করছি, তাই আমি মাননীয় পুলিশ কমিশনারের কাছে আবেদন জানিয়েছি যেন স্বতন্ত্র ভাবে গুপনে তদন্ত করে এই পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেন।

    এ বিষয়ে জানতে চাইলে আকবর শাহ থানার  সেকেন্ড অফিসার এস আই এমদাদ হোসেন চৌধুরী দিগন্ত নিউজকে বলেন, আমি ভিকটিমকে হুমকি দিয়েছি তার কোন প্রমাণ নেই, আমি কেন তাকে হুমকি দিতে যাব এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই আলমগীর, এই মামলার সাথে আমার কোন ধরনের সম্পর্ক নেই। আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের কোন ভিত্তি নেই।

    প্রকাশিত: বুধবার ০৯, সেপ্টেম্বার ২০২০

    Post Top Ad