Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    রাজারহাটে মধ্যরাতে স্কুল ছাত্রীকেতুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষন ও বাড়ি ডাকাতি মামলায় ২আসামীর ৫দিনের রিমান্ড

    মাসুদ রানা, রাজারহাট-কুড়িগ্রামঃ- কুড়িগ্রামের রাজারহাটে চাঞ্চল্যকরস্কুল ছাত্রী ধর্ষন ও বাড়ি ডাকাতি মামলার দুই আসামীর পৃথক ৫দিনের রিমান্ডদিয়েছে আদালত। এরমধ্যে পূর্বে গ্রেফতারকৃত   আসামী আব্দুল মালেকদু’দিনেই পুলিশকে অনেক গুরুত্ব তথ্য দিয়েছে।

    জানা গেছে, উক্ত মামলায় গ্রেফতারকৃত আসামী আব্দুস ছালামের১০দিনের রিমান্ড চেয়ে শনিবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজারহাট থানারওসি তদন্ত পবিত্র কুমার কুড়িগ্রামের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটআদালতে আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক মিলন চন্দ্র পাল উক্ত আসামী আঃছালামের ৫দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

    এরআগে শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে রাজারহাটউপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের বড় গ্রামের উমর আলীর পুত্র আঃ ছালাম চোর (৪৫) কেপুলিশ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। এদিকে গত বুধবার রাতে পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত পার্শ্ববর্তী লালমনিরহাট জেলা সদরের সিংহীদাহ গ্রামের আঃ রাজ্জাকের পুত্র আব্দুল মালেক (৩৮) কেগ্রেফতার করে।
    গত বৃহস্পতিবার কুড়িগ্রামের সিনিয়র জুডিশিয়ালম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে পুলিশ আসামী মালেকের ১০দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত তারও ৫দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। ৫দিনের মধ্যে অতিবাহিত দুদিনেররিমান্ডেই আসামী মালেক ধর্ষন ডাকাতির মামলায় জড়িতদের সম্পর্কে চাঞ্চল্যকরতথ্য দিয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

    উল্লেখ্য,গত ২৬জুলাই দিবাগত রাতে মুষুলধারে বৃষ্টি চলাকালীন সময়উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের মহিধর খন্ডক্ষেত্র গ্রামে বাড়ির দরজা ভেঙ্গে মুখোশপরিহিত তিন দুস্কৃতকারী কক্ষের ভিতর প্রবেশ করে। এসময় বিদ্যুৎ ছিল না। কিছুবুঝে উঠার আগেই দুস্কৃতকারীরা মেয়েটির পিতাকে ধারালো অস্ত্রাঘাতে ওপিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এক পর্যায়ে তার পিতা সজ্ঞাহীন হয়ে পড়েন।

    এসময়মেয়েটির মা এগিয়ে আসলে তাকেও মারপিট করে খাটের সাথে বেঁধে রাখা হয়। পরেওই কক্ষের আলমারীর দরজা খুলে নগদ ২লাখ টাকা দুই ভরি স্বর্ণালংকার লুট করেমুখোশ পরিহিতরা। 

    শেষে অপর কক্ষের দরজা ভেঁঙ্গে বাড়ি ওয়ালার ৯ম শ্রেণীর স্কুল পড়ুয়া ছাত্রীকে তুলে নিয়ে গিয়ে পার্শ্ববর্তী ইউক্লিপটাস বাগানে ধর্ষন করেলম্পটরা। এঘটনায় ২৭জুলাই রাতে ধর্ষিতার পিতা বাদী হয়ে রাজারহাট থানায়অজ্ঞাতনামা তিনজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন।

    পরে এলাকাবাসীআসামী সনাক্ত গ্রেফতারের দাবীতে দুদফা মানব বন্ধন এবং প্রতিবাদ সভাকরে। এরপর তৎপর উঠে পুলিশ প্রশাসন। এরই প্রেক্ষিতে রাজারহাট থানা পুলিশকুড়িগ্রাম ডিবি পুলিশ লালমনিরহাট সদর থানা পুলিশের সহায়তায় গতবুধবার রাতে আঃ মালেককে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

    মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজারহাট থানার ওসি তদন্ত পবিত্র কুমারজানান,রিমান্ডে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামী মালেক নিজে জড়িত থাকা সহঅনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। শনিবার অপর আসামী আঃ ছালামের ৫দিনেররিমান্ড মঞ্জুর হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেন তিনি


    কুড়িগ্রাম ডিবি পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোখলেসুর রহমান ঘটনারসত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজারহাট থানার ওসি(তদন্ত),আমরা তাকে সহযোগীতা করছি।

    প্রকাশিত: শনিবার ৮, অগাস্ট ২০২০

    Post Top Ad