Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    দুর্নীতির অভিযোগে মালয়েশিয়ার সাবেক অর্থমন্ত্রী গ্রেফতার


    সমুদ্রের নিচের টানেল প্রকল্পে ১.৫ বিলিয়ন ডলার দুর্নীতির অভিযোগে মালয়েশিয়ার সাবেক অর্থমন্ত্রী লিম গুয়ান ইং দেশটির দুর্নীতি দমন কর্তৃপক্ষের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন।

    সংবাদ সংস্থা ব্লুমবার্গের খবরে জানা যায়, গ্রেফতারের পরদিন (শুক্রবার) আদালতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন তিনি।

    লিমের বিরুদ্ধে অভিযোগ, পেনাংয়ের মুখ্যমন্ত্রী থাকার সময় প্রকল্প থেকে ১০ শতাংশ লভ্যাংশ চেয়েছিলেন তিনি। রাস্তা ও টানেল প্রকল্পের কাজে প্রাদেশিক সরকারের নিয়োগকৃত কোম্পানির মালিক জারুল আহমেদ মোহাম্মদ জুলকিলফির কাছ থেকে ঘুষ চেয়েছিলেন তিনি। ২০১১ সালের মার্চে কুয়ালালামপুরের একটি হোটেলের কাছে তিনি এই অপরাধ করেছিলেন।

    মালয়েশিয়ার দুর্নীতি দমন কমিশন এক বিবৃতিতে জানায়, শুক্রবার সকালে এমএসিসি আইন ২০০৯ এর ধারা ১৬ (ক) (এ) এর অধীনে দুর্নীতির মামলায় বিশেষ আদালতে জ্যেষ্ঠ বিরোধীনেতা লিমের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে। দোষী সাব্যস্ত হলে ঘুষের পাঁচ গুণ জরিমানা ও ২০ বছরের কারাদণ্ডও হতে পারে।

    আগামী মঙ্গলবার পেনাং দায়রা আদালতে এমসিসি আইনের ২৩ ধারায় লিমের বিরুদ্ধে পৃথক মামলার জন্যও চার্জ করা হবে।

    অগণিত মিডিয়ার উপস্থিতিতে শুক্রবার সকালে বিশেষ দুর্নীতি আদালতে আনা হয় লিমকে। আন্ডারসেট টানেল প্রকল্পে দুর্নীতি হয়েছে এমন অভিযোগের ভিত্তিতে মাসব্যাপী তদন্ত শেষে বৃহস্পতিবার গ্রেফতার করা হয় তাকে।

    জানা গেছে, মূল ভূখণ্ড বাটারওর্থের সঙ্গে পেনাংয়ের রাজধানী জর্ট টাউনকে সংযুক্ত করতে ৭ দশমিক ২ কিলোমিটারের একটি টানেল তৈরির পরিকল্পনা করেছে সরকার।

    ২০১৮ সালে অর্থমন্ত্রী হওয়ার আগে পর্যন্ত ২০০৮ সাল থেকে পেনাংয়ের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন ডেমোক্রেটিক অ্যাকশন পার্টির মহাসচিব লিম।

    মালয়েশিয়ার দুর্নীতি দমন সংস্থা আরও জানায়, আদালতে আগামী সপ্তাহে আরও দুটি অভিযোগের মুখোমুখি হবেন লিম। একটি টানেল প্রকল্প সম্পর্কিত। তবে অন্যটির বিষয়ে কিছু জানায়নি সংস্থাটি।

    এর আগে গত ২৮ জুলাই দুর্নীতির মামলায় দোষী সাব্যস্ত হন মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজির রাজাক। তাকে ১২ বছরের কারাদণ্ড ও ৫ কোটি মার্কিন ডলার জরিমানা করেছেন দেশটির আদালত।



    প্রকাশিত: শুক্রবার ৭, অগাস্ট ২০২০

    Post Top Ad