Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    ফেইসবুকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন প্রশাসক নিয়োগ, জানেননা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়!

    প্রধান প্রতিবেদকঃ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়াদ আর সপ্তাহ খানেক মাত্র। আগামী ৫ আগস্ট শেষ হচ্ছে বর্তমান মেয়রসহ নির্বাচিত পরিষদের মেয়াদ। নিয়ম অনুযায়ী এর আগেই নতুন নির্বাচন সম্পন্ন করার কথা থাকলেও করোনাভাইরাসে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে গত মার্চে সেই নির্বাচন স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে নতুন নির্বাচনের  সম্ভাবনা এখনো নেই, ফলে স্থানীয় সরকার আইন ২০০৯ অনুযায়ী প্রশাসক দিয়েই আপাতত কর্পোরেশন চালানোর কথা ভাবছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

    এর মধ্যে নির্বাচন করা সম্ভব না হওয়ায় স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) আইন অনুযায়ী চট্টগ্রামে একজন প্রশাসক নিয়োগ দেওয়ার বিষয়টি এখন চূড়ান্ত। এক্ষেত্রে চট্টগ্রামের বেশ কয়েকজন রাজনৈতিক নেতা ছাড়াও অতিরিক্ত বা যুগ্ম সচিব পদমর্যাদার কোনো সরকারি কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে বলে গুঞ্জন আছে।

    এরি মধ্যে গত কয়েকদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হচ্ছে-চট্টগ্রাম সিটির প্রশাসক হিসাবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার সার্বিক শংকর রঞ্জন সাহাকে। এজন্য বিভিন্ন জন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাকে অভিনন্দন জানিয়ে পোস্টও দিচ্ছেন। কিন্তু এ বিষয়ে কিছুই জানেন না সরকারের সংশ্লিস্ট মন্ত্রণালয় বা সংশ্লিস্ট ব্যক্তি।

    এ ব্যাপারে স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দিন আহমদ জানান, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক হিসাবে এখনো কাউকে চূড়ান্ত করা হয় নি। চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার সার্বিক শংকর রঞ্জন সাহাকে প্রশাসক হিসাবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের খবর সটিক নয় বলেও জানান হেলালুদ্দিন আহমদ। তিনি বলেন, এই এখন পর্যন্ত এই পদে চট্টগ্রামের ৩/৪ জন রাজনৈতিক নেতার নামই সরকারের সংশ্লিস্ট দপ্তরে ঘুরছে। গোয়েন্দা সংস্থাগুলো যাছাই-বাঁছাই করছে সম্ভাব্য নেতাদের কর্মকান্ড।

    এ ব্যাপারে জানতে চাইলে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) শংকর রঞ্জন সাহা জানান, তিনি এ বিষয়ে কিছুই জানেন না। 

    চট্টগ্রাম সিটি মেয়রের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা মো. আবুল হাশেম জানান, প্রশাসক নিয়োগের কোন পত্র এখনো তাদের দপ্তরে আসেনি। তিনি বলেন, ‌'কাউকে নিয়োগ দেয়া হলে আমরা জানতাম।'

    বিভিন্ন সূত্র মতে, প্রশাসক হিসাবে এখন পর্যন্ত নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এড. ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, নগর আওয়ামী লীগের অপর সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজনসহ কয়েকজনের নাম শোনা যাচ্ছে। প্রশাসক হিসাবে বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের নামও শোনা যাচ্ছে। 

    এর আগে গত ২৯ মার্চ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করে চসিক নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছিল নির্বাচন কমিশন। পরে করোনা পরিস্থিতির কারণে চসিক নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। এর মধ্যে দুটি আসনে জাতীয় সংসদের উপ-নির্বাচন করা হলেও চসিক নির্বাচন নিয়ে এখন পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেনি নির্বাচন কমিশন।

    প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার ৩০, জুলাই ২০২০

    Post Top Ad