Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    আওয়ামীলীগ নেতা কতৃক বিধবা ভাতার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ


    মোঃ ফজলুল হক ভুইয়া, ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইলে  এক বিধবা নারীর বিধবা ভাতার  টাকা জনৈক আওয়ামীলীগ নেতা কতৃক আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার বিবরণে জানা যায়  সরকারের সামাজিক নিরাপত্তাবেষ্টনীর তালিকাভুক্ত বিধবা নারী হলেন, জাহাঙ্গীরপুর ইউনিয়নের রহিমপুর গ্রামের মৃত ওয়াহেদ আলীর স্ত্রী আমেনা খাতুন(৫৫)।

    ভাতার টাকা আত্মসাতের অভিযুক্ত হলেন, জাহাঙ্গীরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগে সিনিয়র নেতা আব্দুল করিম। আমেনা খাতুন জানান, আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল করিম তাঁর প্রতিবেশী সেই সুবাদে ভাতা পাবার আশায় প্রায় ৫ বছর আগে  জাতীয় পরিচয়পত্রটি তার হাতে তুলে দিয়েছিলেন । পরে  জাতীয় পরিচয়পত্রটি তাকে বুঝিয়ে দিলেও  ভাতার কোনো টাকা পাননি তিনি। স্থানীয় সমাজসেবা অফিস সুত্রে জানা গেছে, আমেনা খাতুন ২০১৫ সালের ১ জানুয়ারি মাস থেকে সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর খাতে তালিকাভুক্ত হয়েছেন। তখন থেকে তার নামে  ভাতার টাকা উত্তোলণ করা হচ্ছে।

    তার পাশ বহি নং-৫৪৫৫/১হিসাব নং-১৫৮৪ সোনালী ব্যাংক লিঃ নান্দাইল শাখা। উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা ইনসান আলী জানান,এব্যাপারে ব্যাংকে পত্র পাঠানো হয়েছে। ছবিযুক্ত প্রকৃত ব্যক্তিকে যেন ব্যাংক কতৃপক্ষ টাকা তুলে দেন।

    আমেনা খাতুনের মুখের কথা হলো, গত রোজার মাসে আবদুল করিম তাঁকে নান্দাইল সোনালী ব্যাংকে নিয়ে যান। তখন পাশ বই ছাড়া ব্যাংক থেকে তাঁর নাম ও স্বামীর নাম ধরে ডাকা হয়। ব্যাংক  কাউন্টার থেকে তাঁর হাতে তিন হাজার টাকা তুলে দেওয়া হয়। তখন  আবদুল করিম  তাঁর হাত থেকে সাক্কুল্য টাকা নিয়ে নেন। তাঁকে মাত্র ২০০ টাকা  দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। 

    বিধবার পুত্র রফিকুল সমাজসেবা কার্যালয়ে এসে বিষয়টি অবহিত করলে, সমাজসেবা কর্মকর্তা  সরেজমিনে বিধবার বাড়িতে গিয়ে বিধবার কাছ থেকে বিস্তারিত জানেন। সমাজসেবা কর্মকর্তা ইনসান আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান আমি এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। আগামী উপজেলা কমিটির সভায় এবিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহন করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এব্যাপারে অভিযুক্ত আব্দুল করিমের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

    প্রকাশিত: সোমবার, ০১ জুন, ২০২০

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad