Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    ভারতীয় পাগল বাংলাদেশে পুশইন করায় বুড়িমারী সিমান্তে উত্তেজনা বিএসএফের গুলি


    কামরান হাবিব,রংপুর:: লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলাধীন বুড়িমারী জিরো পয়েন্ট দিয়ে অবৈধ কৌশল অবলম্বন করে ভারতীয় বিএসএফের জোয়ানেরা একজন পাগলকে পুশইন করলে এলাকায় উত্তেজনা সৃষ্টি হলে বিএসএফের পক্ষ থেকে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ৬ রাউন্ড গুলো ছুরে এতে কোনো হতাহতের খবর না পাওয়া গেলেও একজন বিজিবি সদস্য সহ বেশ কয়েকজন সাধারণ মানুষ আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। 

    এবিষয়ে একজন মন্তব্য করতে গিয়ে বলেন,কি আজব তারা কি আমাদের বন্ধু প্রিতম প্রতিবেশী না শত্রু আজকে বুড়িমারীর সীমান্তবর্তী এলাকায় সংঘটিত একটা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় একজন পাগলকে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করাকে নিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে । এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভারতের বিএসএফ বাংলাদেশ সীমান্তে প্রবেশ করে ৬ রাউন্ড গুলি ছুড়ে।যার ফলে এখন সীমান্তবর্তী এই এলাকায় বেশ উত্তেজনাকর অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে।


    ভারত আমাদের প্রতিবেশী দেশ আবার অনেক ভালো বন্ধু বটে।এদিকে পাগলটাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে উত্তর দিয়ে বলে সে ভারতীয় নাগরিক।ভারতের বিএসএফ পাগলটিকে অমানুষিকভাবে শরীরে নির্যাতন করলে করুন দৃশ্য চোখে পড়ে। দীর্ঘদিন ধরে ভারতীয় বিএসএফ এই পাগলদের জোর করে বাংলাদেশের বিভিন্ন সিমান্ত পয়েন্ট দিয়ে ঢুকিয়ে দিচ্ছে।সারাবিশ্বে যখন করোনাভাইরাস নিয়ে হতাশা আর আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে সেখানে আমাদের প্রিয় প্রতিবেশী দেশ ভারত দিনের পরপর পাগলদের মেরে রক্তাক্ত করে বাংলাদেশে ঢুকিয়ে দিচ্ছে।এই চিত্রটা যে আজকের এমনটা কিন্তু নয় এটা বহু বছর ধরে চলে আসতে আসতে একটা রীতিতে পরিণত হয়েছে সীমান্তবর্তী মানুষদের কাছে। এঘটনার জেরে একজন বলেন

    আমার জন্ম একেবারে ভারত ও বাংলাদেশের সীমান্তরেখার কোল ঘেঁসে।জন্মের পর থেকে দেখি আসছি ভারতের বিএসএফের এমন নির্মম নিষ্ঠুরর অমানবিক অন্যায় অত্যাচার। প্রত্যক্ষ ভাবে অনেক বাংলাদেশি মানুষের লাশ দেখেছি বিএসএফ নির্মমভাবে হত্যা করে তারের বেড়ার উপর ঝুলিয়ে রেখেছে। কী এক মমর্মান্তিক দৃশ্য? টেলিভিশন এবং পত্রিকা খুললে প্রতিনিয়ত এমন অগনিত অমানবিক চিত্র আমরা দেখতে পাই।


    আমরা হয়তো অনেকেই জানি পৃথিবীর সবথেকে উত্তেজনাকর সীমান্তবর্তী অঞ্চল ইসরাইল এবং ফিলিস্তিন এর মধ্যে মাঝে মাঝে কিছু্ দৃশ্যপট যেন ইসরাঈল আর ফিলিস্তিন সীমান্তের করুণ চিত্রকে হার মানায়। এবিষয়ে রাষ্ট্র পক্ষের সংশ্লিষ্টগনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে কাউকে পাওয়া যায়নি। তবে এলাকার সচেতনমহল এমন ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ঘটনার সাথে জড়িতদের বিচার চেয়ে সকলকে  সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান।



    প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২০

    Post Top Ad