Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    শীতলপাটি উন্নয়ন মূলক মত বিনিময় সভাইয় রেঞ্জ ডিআইজি






    মোঃ আল-আমিন,ঝালকাঠিঃ-" পেয়ারা আর শীতল পাটি এই দুইয়ে ঝালকাঠি " ঝালকাঠি জেলাকেশিল্প সমৃদ্ধ জেলায় রূপায়িত করার অন্যতম শিল্প শীতল পাটি, গামছা ওমৃৎ শিল্প তার পাশাপাশি বর্তমানে সারাদেশ ব্যাপী খ্যাতি অর্জনকরা ঐতিহাসিক   দর্র্শণীয় স্থানগুলোর মধ্য বিশ্বব্যাপী যার নাম সমাদৃত ভীমরুলী ভাসমান পেয়ারার হাট।   

    গত বছর বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি ঝালকাঠির ভাসমান পেয়ারা হাট পরিদর্শন করেন। এ বছরের শুরুতে গত ১৭ জানুয়ারী বিকালে ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলাধীন হাইলাকাঠি গ্রামের শীতলপাটি উন্নয়ন মূলক সমবায়স মিতির ঘর পরিদর্শন করেন সেই সাথে সমিতির সদস্যদের সাথেও বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি শফিকুল ইসলাম সমিতির সভা কক্ষে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

    মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বরিশাল রেঞ্জের পুলিশের ডিআইজি মোঃসফিকুল ইসলাম বিপিএম বার পিপিএম । 

    এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন ডিআইজির সহধর্মিনী বানিজ্য মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব মালেকা খায়রুন্নেছা। রাজাপুর উপজেলার হাইলাকাঠি ডহরশংকর গ্রামের শীতলপাটি উন্নয়নমূলক সমবয় সমিতির সভাপতি শ্রী   তাপস পাটিকরের সভাপতিত্বে ও উপজেলার মঠবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃমোস্তফা কামাল সিকদারের তত্বাবধায়নে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঝালকাঠি জেলা পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিন,সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ সাখাওয়াত হোসেন, অতিরিক্তপুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সদর সার্কেল মাহামুদ   হাসান, রাজাপুর থানার ওসি মোঃ জাহিদ হোসেন, ওসি তদন্ত মো:আবুল কালাম, রাজাপুর সাংবাদিক ক্লাবের সদস্য সহ এলাকার শতাধিক পাটিকর সহ গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। 

    সার্বিক তত্বাবধায়নে ছিলেন উপজেলার মঠবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মোস্তফা কামাল সিকদার।
    ঝালকাঠি জেলার ঐতিহাসিক দর্শণীয় স্থান গুলোর মধ্যে রাজাপুর সাতুরিয়া জমিদার বাড়ি, কবি জীবনানন্দ দাশ এর মামা বাড়ি ও কীর্ত্তিপাশা জমিদার বাড়ি উলেস্নখ যোগ্য।



    এছাড়া অন্যান্য দর্শনীয় স্থানের মধ্যে রয়েছে গাবখান সেতু, ধানসিঁড়ি নদী, রূপসা খাল, গালুয়া পাকা মসজিদ,নেছারাবাদ   কমপেস্নক্স,পোনাবালিয়া মন্দির, সিদ্ধকাঠী জমিদার বাড়ি, নলছিটি পৌরভবন, চায়না কবর, কামিনী রায়/ যামিনী সেনের বাড়ী ইত্যাদি।


    প্রকাশিত: শনিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২০

    Post Top Ad