• সর্বশেষ আপডেট

    ডিবি পরিচয়ে ২০০ ভরি সোনা লুট তিন পুলিশ কর্মকর্তার

     


    এবার ডিবি পরিচয়ে দুই'শ ভরি সোনা লুট করল তিন পুলিশ কর্মকর্তা। রাজধানীর উত্তরায় এক ব্যবসায়ীর ২ কোটি টাকার মূল্যের সোনা লুটের ঘটনায় পুলিশের তিন কর্মকর্তার সংশ্লিষ্টতা পেয়েছে উত্তরা থানা পুলিশ। এ ঘটনায় ছয়জনকে গ্রেপ্তারের পর পুলিশ বলছে, দুইজন এসআই ও একজন এএসআইয়ের নেতৃত্বে গত বছরের ডিসেম্বর মাসে সোনা লুটের ঘটনাটি ঘটেছে। ভুক্তভোগীর অভিযোগ, তার ভগ্নপতির পরিকল্পনাতেই এই লুটের ঘটনা ঘটানো হয়েছে।১৪ ডিসেম্বর ৬ টা ২২ মিনিটের এই সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায় সাদা রঙের একটি মাইক্রো উত্তরা ১৩ নম্বর সেক্টরের খেলার মাঠের গলি পার হচ্ছে। ঠিক ৩০ সেকেন্ড পর সেই গাড়িটি এগোয় ২০ নম্বর সড়কের দিকে। এই রোডের ৫০ নম্বর বিল্ডিংয়ের সামনেই ৬ টা ২৫ মিনিটে গতিরোধ করা হয় শিল্পী জুয়েলার্সের কর্মচারী অনিককে। জুয়েলার্সের মালিক গৌরাঙ্গ দত্ত জানান, গাড়ি থেকে কয়কজন নেমে অনিককে ডিবি পরিচয়ে গাড়িতে তুলে নেন। এরপর সাথে থাকা ২০০ ভরি সোনা ও তার মোবাইল ফোন রেখে দিয়ে অনিককে মেট্রোরেলের উত্তরা স্টেশনে ফেলে দেন।উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি আবুল হাসান বলেন, 'এ ঘটনায় ২৩ ডিসেম্বর উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করেন গৌরাঙ্গ দত্ত। ২৪ ডিসেম্বর গিয়াস উদ্দিন নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তারের পর জানা তিনি শ্রীপুর থানায় এএসআই হিসেবে কর্মরত। এ ঘটনায় আরও ২ পুলিশের সংশ্লিষ্টতা পেয়েছে পুলিশ।' এদিকে, গৌরাঙ্গ দত্তের অভিযোগের তীর তার ভগ্নিপতি মানিক দাশের দিকে। তার পরিকল্পনাতেই এ ডাকাতি, অভিযোগ তার। এ ঘটনায় পুলিশ জড়িত থাকায় জীবন নিয়েও শংকায় এ জুয়েলার্সের মালিক।এদিকে, এএসআই গিয়াস উদ্দিন গ্রেপ্তার হওয়ার পর তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বাকিদের ধরতেও চলছে পুলিশের অভিযান।

    প্রকাশিত বৃহস্পতিবার ০৪ জানুয়ারি ২০২৩