• সর্বশেষ আপডেট

    বিকেলে মামলা, রাতে পরাজিত প্রার্থীর ফুলেল শুভেচ্ছা নিলেন মন্ত্রী

     

    সদ্য অনুষ্ঠিত দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনের প্রচারে আপত্তিকর বক্তব্য দেওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর ও বিজয়নগর) আসনের পরাজিত স্বতন্ত্র প্রার্থী ফিরোজুর রহমান ওলিওর নামে শতকোটি টাকার মানহানি মামলা হয়েছে। এ আসনে জয়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থী এবং নবনিযুক্ত গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এই মামলা করেন। দিনে করা এই মামলা অবশ্য পরাজিত প্রার্থী ফিরোজুর রহমানের কাছ থেকে রাতে ফুলেল শুভেচ্ছা নেওয়ায় কোনো বাধা হতে পারেনি।

    গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া যুগ্ম জেলা জজ নজরুল ইসলামের আদালতে মামলাটি করা হয়। আগামী রোববার মামলার শুনানি শেষে আদালত আদেশ দেবেন বলে জানিয়েছেন বাদীর আইনজীবী আব্দুল জব্বার মামুন। 
    এদিকে মামলার দিন রাতেই ঢাকায় নবনিযুক্ত মন্ত্রী র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান ফিরোজুর রহমান ওলিও। এ সময় সঙ্গে ছিলেন তাঁর প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট ও বড় ছেলে শেখ ওমর ফারুক। 
    গত ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৫৮ হাজার ৮৭২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী ফিরোজুর রহমান কাঁচি প্রতীকে পান ৬৪ হাজার ৩৭ ভোট।
    মামলার আবেদনে বলা হয়, সংসদ নির্বাচনের প্রচার চলাকালে গত ২৬ ডিসেম্বর স্বতন্ত্র প্রার্থী ফিরোজুর রহমান সুহিলপুরে তাঁর এক নির্বাচনী জনসভায় বলেন, ‘তাঁর (মোকতাদির চৌধুরী) নিজের ঘরেই আমার টাকা, আজ থেকে ৩০/৩৫ বৎসর আগে আমি তাঁকে ৫০ হাজার টাকা দিয়া রাখছি।’ 
    ওই জনসভায় ফিরোজুর রহমান আরও বলেন, ‘আমি তাঁহাকে ইউনিভার্সিটি অব ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিষ্ঠার সময় আর্থিক সহায়তা করেছি।’
    মামলার বিষয়ে বাদীর আইনজীবী আব্দুল জব্বার মামুন বলেন, ‘ফিরোজুর রহমানকে তাঁর বক্তব্য প্রত্যাহার করে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে উকিল নোটিশ পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু তিনি জবাব না দেওয়ায় আদালতে তাঁর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করা হয়েছে।’ 
    এই আইনজীবী আরও বলেন, ‘মোকতাদির চৌধুরী ৩০ বছর আগে ফিরোজুর রহমানকে চিনতেনই না। ফলে তাঁর কাছ থেকে টাকা নেওয়ারও প্রশ্ন ওঠে না।’

    প্রকাশিত শুক্রবার ১২ জানুয়ারি ২০২৩