• সর্বশেষ আপডেট

    যৌন হয়রানির বিচার না পেয়ে একজনের অবসর, পদ্মশ্রী ফেরত দিতে রাস্তায় আরেকজন

      

    গত বৃহস্পতিবার বেশ নাটকীয় এক অধ্যায় গেছে ভারতের রেসলিং ফেডারেশনে। ২১ ডিসেম্বর ভারতীয় রেসলিং ফেডারেশনের (ডাব্লিউএফআই) নতুন সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন সঞ্জয় সিং। এর প্রতিবাদে অবসর নিয়েছেন অলিম্পিকে পদকজয়ী নারী রেসলার সাক্ষী মালিক। সে সিদ্ধান্তের সঙ্গে ঐকমত্য জানাতে গতকাল ভারতের আরেক বিখ্যাত রেসলার বজরং পুনিয়া তাঁর পদ্মশ্রী পদক ফিরিয়ে দেওয়ার ঘোষণা দেন। প্রথম ভারতীয় হিসেবে চারটি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের পদকজয়ী এই রেসলার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উদ্দেশ্যে টুইটারে এক চিঠিতে লিখেছেন, ‘নারী রেসলারদের যখন অপমান করা হচ্ছে তখন ভারত সরকারের দেওয়া সম্মান নিয়ে বেঁচে থাকা সম্ভব না তাঁর পক্ষে।’   সরাসরি মোদির বাসার বাইরে পদ্মশ্রী রেখে আসতে গতকাল বের হয়েছিলেন পুনিয়া। কিন্তু কর্তব্য পথে তাঁকে আতকে দেবেন দায়িত্ব পালনরত পুলিশ কর্মকর্তারা। তখন পুনিয়া ঘোষণা দেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে পদক পৌঁছে দেবেন, এই কথা যিনি দেবেন, তাঁর হাতেই পদ্ম শ্রী তুলে দেবেন তিনি।এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে পুনিয়া বলেন, ‘এমন এক দিনে আমার জেতা পুরস্কার ও পদকে (গর্ব নয়) দুঃখ হচ্ছে। আমাদের মেয়ে ও বোনদের জন্য লড়াই করে যখন ব্যর্থ হয়েছি, তখন আর এসব পদক কেন দেওয়া হলো আমি জানি না। আমার মনে হচ্ছে এই পদকের যোগ্য আমি না। খেলোয়াড়দের সাহায্য করতে ফেডারেশনের জন্ম দেওয়া হয়েছে, তাদের খাটো করতে বা অবসর নিতে বাধ্য করতে নয়।’ এ ঘটনায় শুধু রেসলিং নয়, বক্সিংয়ের তারকারাও মুখ খুলেছেন।সবকিছুর সূত্রপাত ডাব্লিউএফআইয়ের নতুন প্রধান হিসেবে সঞ্জয় সিংয়ের নিয়োগ পাওয়ায়। সঞ্জয় বিজেপির সংসদসদস্য ব্রিজ ভূষণ সিংয়ের আশীর্বাদপুষ্ট। আর রেসলারদের যত আপত্তি ব্রিজভূষণকে নিয়েই। গত জানুয়ারিতে ভারতের নারী রেসলাররা ব্রিজ ভূষণের বিপক্ষে আন্দোলনে নামেন।  রেসলিং ফেডারেশনের তৎকালীন প্রধানের বিরুদ্ধে অভিযোগ নারী রেসলারদের যৌন হয়রানি করেছেন এই রাজনীতিবিদ। তাঁর বিরুদ্ধে ছয়জন রেসলার অভিযোগ তুলেছিলেন। ক্রীড়া মন্ত্রণালয় তাঁর ক্ষমতা কেড়ে নেয় এবং সরকারের পক্ষ থেকে তদন্তের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়। বিশ্ব রেসলিংয়ের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইউডাব্লিডাব্লিউ এ ঘটনায় ভারতের রেসলিং ফেডারেশনকে নিষিদ্ধ করে। কিন্তু এ ঘটনায় এখনো কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। বরং ব্রিজভূষণেরই কাছের লোককে ফেডারেশনের প্রধান নির্বাচিত করা হয়েছে গত বৃহস্পতিবার।সাক্ষী মালিকের জুতা। ছবি: টুইটারফেডারেশনের নতুন প্রধান কে- এটা জানতে পেরে সংবাদ সম্মেলন দাকেন বজরং পুনিয়া, সাক্ষী মালিক ও বিনেশ ফোগাত। তারা জানান গত জানুয়ারি আন্দোলনে নামার আগে মুখ্যমন্ত্রী অমিত শাহকে জানিয়েছিলেন তাদের অভিযোগ। কিন্তু প্রতিশ্রুতি দিয়েও ঘটনার কোনো বিচার করা হয়নি।টোকিও অলিম্পিকে পদকজয়ী পুনিয়া বলেছেন, তাঁরা এখন নিজেদের জীবন নিয়েই শঙ্কায় পড়ে গেছেন, যারাই প্রতিবাদ জানিয়েছেন, অভিযোগ করেছেন, সবাই হুমকির মধ্যে আছেন। ব্রিজ ভূষণের ক্ষমতার দাপটে সব অভিযোগ উড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে, ফলে যেকোনো দিন যেকোনো কিছু ঘটতে পারে, ‘আমাদের কারও ভবিষ্যৎ আর নিরাপদ না। যেকোনো কিছু হতে পারে। হতে পারে গাড়ি দুর্ঘটনা বা কোনো ভয়ংকর অভিযোগ।’সংবাদ সম্মেলন একমাত্র ভারতীয় নারী রেসলার হিসেবে অলিম্পিক পদকজয়ী মালিক কান্নায় ভেঙে পড়ে সংবাদ সম্মেলনে। টেবিলের ওপর রেসলিংয়ের জুতা রেখে ঘোষণা দেন, ‘আমি রেসলিংকে বিদায় দিলাম, আজকের পর থেকে আমাকে আর ম্যাটে দেখবেন না।’ অন্যদিকে মালিকের অবসরের ঘোষণায় ব্রিজ ভূষণের প্রতিক্রিয়া ছিল, ‘আমার এতে কোনো ভূমিকা নেই।’ পরে এ ব্যাপারে বলেছে, এতে বিরোধী দলের ষড়যন্ত্র রয়েছে। 
    প্রকাশিত শনিবার ২৩ ডিসেম্বর ২০২৩