Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    ১৩শ কোটি বছর আগের মহাবিশ্বের রঙিন ছবি প্রকাশ্যে আনল নাসা

      


    এক হাজার ৩০০ কোটি বছর আগের মহাবিশ্বের ছবি প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে আনল মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা ।  বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী টেলিস্কোপ জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপের তোলা গ্যালাক্সিগুলোর এমন ছবি এই প্রথম প্রকাশ করা হলো।


    নাসার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এই ছবিটি ১৩০০ কোটি বছরের কাছাকাছি সময়কার।  ছবিটি মহাবিশ্বের গ্যালাক্সিগুলোর একটি অংশকে ধারণ করেছে। এর নাম দেওয়া হয়েছে এসএমএসিএস ০৭২৩।
    মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন হোয়াইট হাউসে এই ছবি প্রকাশ করে বিজ্ঞানের অগ্রযাত্রায় যুক্তরাষ্ট্রের বৈশ্বিক অবদানের কথা তুলে ধরেন।  ছবি উন্মোচন করে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, নাসা এক অভূতপূর্ব কর্ম সাধন করেছে। যুক্তরাষ্ট্র ও পুরো মানবসভ্যতার জন্য এটি ঐতিহাসিক দিন।

    ছবিতে মহাবিশ্বে ছড়িয়ে থাকা জ্বলজ্বলে আলোক রশ্মির বিচ্ছুরণ ফুটে উঠেছে। মহাবিশ্বের প্রাচীনতম রূপ এটি। মহাবিশ্বের এই ছবি নিয়ে হইচই পড়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্রসহ সারা বিশ্বে।

    নাসার প্রশাসক বিল নেলসন বলেছেন, ছবিটিতে বিভিন্ন গ্যালাক্সির চারপাশে বাঁকানো গ্যালাক্সির আলো ফুটে উঠেছে। টেলিস্কোপে পৌঁছানোর আগে কয়েক শ কোটি বছর ধরে ভ্রমণ করেছে এ আলো।

    তিনি বলেন, নাসা শিগগিরই আরও ছবি প্রকাশ করবে। সেগুলো প্রায় ১ হাজার ৪০০ কোটি বছর আগেকার। এসব ছবি মহাবিশ্বের আনুমানিক শুরু বিন্দুর কাছাকাছি। আমরা প্রায় শুরুতে ফিরে যাচ্ছি।

    বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, নাসার ফ্ল্যাগশিপ মিশনখ্যাত জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপটি হাবল টেলিস্কোপের উত্তরসূরি। এটি তৈরি করতে খরচ হয়েছে এক হাজার কোটি ডলার।  গত বছরের ২৫ ডিসেম্বর জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপটি মহাশূন্যের উদ্দেশে রওনা দেয়। পৃথিবীর কক্ষপথ ছাড়িয়ে বর্তমানে প্রায় ১৫ লাখ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে এই টেলিস্কোপ। টেলিস্কোপের মূল লক্ষ্য দুটি। এক, প্রায় ১ হাজার ৪০০ কোটি বছর আগের মহাবিশ্বে জ্বলে ওঠা আদি নক্ষত্রগুলোর ছবি তোলা। আর দ্বিতীয়টি হচ্ছে দূরদূরান্তের গ্রহগুলো প্রাণ ধারণের উপযোগী কি না, তা খতিয়ে দেখা।

    ১৯৯০-এর দশকে মহাকাশে পাড়ি দেওয়ার কথা ছিল  জেমস ওয়েব টেলিস্কোপের। তখনই খরচ ধরা হয়েছিল ১০০ কোটি ডলার। ২০২১ সালে যখন এই টেলিস্কোপ মহাকাশে পাড়ি দেয়, তখন খরচ দাঁড়ায় ১০০০ কোটি ডলার।  

    বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তিন যুগ ধরে নির্মিত জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপটি নতুন নতুন ছবিটি দিয়ে মহাবিশ্বে সম্পর্কে আমাদের ধারণাকে পাল্টে দিতে পারে।

    সূত্র: বিবিসি
    প্রকাশিত: বুধবার ১২ জুলাই ২০২২

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad