Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    এক কাউন্সিলরের মামলায় আরেক কাউন্সিলরের জেল ও জরিমানা

     

    খাগড়াছড়িতে এক কাউন্সিলরের মামলায় আরেক কাউন্সিলরের এক বছরের কারাদণ্ড ও ৩৫ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন বিচারক। তবে সাজাপ্রাপ্ত কাউন্সিলরকে জেলে যেতে হয়নি। তিনি উচ্চ আদালতে আপিল সাপেক্ষে জামিন নিয়েছেন। বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) খাগড়াছড়ির যুগ্ম জেলা জজ মাহমুদুল হাসান এই রায় ঘোষণা করেন।

    খাগড়াছড়ি জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি বিধান কানুনগো বলেন, ২০১৯ সালে খাগড়াছড়ি পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুল মজিদ ৩৫ লাখ টাকার চেক জালিয়াতির অভিযোগে মামলা করেন মাটিরাঙা পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুল ইসলামের বিরুদ্ধে। অভিযোগে উল্লেখ করেন, আসামি জরুরি প্রয়োজন দেখিয়ে প্রয়োজন দেখিয়ে কয়েকদিনের জন্য ৩৫ লাখ টাকা ধার নেন। পরে টাকা না দিয়ে চেক দেন। চেক সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে জমা দিলে টাকা না থাকায় ব্যাংক ডিজঅনার করে। মামলার পরও আসামি টাকা দেবো-দিচ্ছি বলে কালক্ষেপণ করে আসছিলেন।

    তিনি আরও জানান, পরে সাক্ষী নিয়ে খাগড়াছড়ির যুগ্ম জেলা জজ মাহমুদুল হাসান বৃহস্পতিবার আসামি সাইফুল ইসলামের এক বছরের কারাদণ্ড ও ৩৫ লাখ টাকা অর্থদণ্ড করেন। পরে উচ্চ আদালতে আপিলের শর্তে জামিন নেন সাইফুল ইসলাম।


    আসামিপক্ষের আইনজীবী মো. নজরুল ইসলাম জানান, আসামি ন্যায় বিচার পাননি। তারা যুগ্ম জেলা জজের আদেশের বিরুদ্ধে জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আপিল করবেন।
    প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad