Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    সীতাকুন্ডে সূর্যমুখী চাষে সফলতা



    মোঃ ইকবাল সীতাকুণ্ড প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে উপজেলার প্রথমবারের মত সূর্যমুখী চাষ করে সফলতা পেয়েছে উপজেলার ২নং বারৈয়াঢালা ইউনিয়নের টেরিয়াল গ্রামের চার যুবক জুয়েল, রুবেল, মুমিন ও পারভেজ। ইতোমধ্যেই সূর্যমুখী গাছের ফুল প্রায় ৮০% ফুল ফুটে গেছে।

     প্রতিদিন বিভিন্ন জায়গা থেকে সৌন্দর্য্য পিয়াসুরা দল বেঁধে আসেন এই সূর্যমুখী ফুলের বাগান দেখতে। প্রায় দর্শনার্থী বাগানের শখ করে ছবি তুলেন। আর এতেই চার যুবকের মুখে সূর্যমুখী ফুলের মতো হাসি ফুটেছে।

    জুয়েল জানান, মূলত শখের বসে তিনি প্রথমবারের মতো ৩৩ শতক জমিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করেছেন। আগে তিনি তার জমিতে বিভিন্ন ধরনের সবজির চাষ করতেন। এ বছর কৃষি অফিসারের পরামর্শে তিনি সহ তিন যুবক প্রথমবারের মতো সূর্যমুখী ফুলের চাষ করেছেন। কৃষি অফিস থেকে বিনামূল্যে ২৫০০ শত বীজ ও সার দিয়েছেন। প্রথম বছরেই ফলন ভাল হওয়ায় তারা খুশি। 
    জুয়েল আরও বলেন, আমার অন্যান্য চাষাবাদের সাথে প্রথম এ চাষ করলাম। ফুলের সৌন্দর্য্য দেখতে প্রতিদিন সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত মাঠে ভিড় করছেন দর্শানার্থীরা। তারা ফুলের সৌন্দয্য উপভোগের পাশাপাশি ফুলের সঙ্গে মোবাইল দিয়ে সেলফি তুলে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছেন। এক একটি ফুল যেন হাসি মুখে সূর্যের আলো ছড়াচ্ছে। চারদিকে হলুদ ফুল আর সবুজ গাছে এক অপূর্ব দৃশ্য।

    সীতাকুন্ড উপজেলা কৃষি অফিসার হাবীব উল্লাহ বলেন, বর্তমানে দেশে সূর্যমুখী পরিচিত একটি ফুল। এর তৈল মানে-গুনে অনন্য। আমাদের দেশে বিদেশ থেকে তৈল আমদানি করতে হয়। সেটা কমিয়ে আনতে সূর্যমুখী চাষের সব ধরনের সহযোগিতা দিচ্ছেন সরকার। সূর্যমুখী চাষে যারা এগিয়ে আসবেন সেইসব কৃষদের বিনামূল্যে বীজ ও সার দিবেন। জুয়েলকে আমরা উদ্ধুদ্ব করেছি এ চাষে। মূলত যারাই সূর্যমুখী চাষে এগিয়ে আসবেন তাদেরকে কৃষি অফিস থেকে সর্বাত্নক সহযোগিতা করবো।

    প্রকাশিত: সোমবার ০৪ এপ্রিল ২০২২

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad