• সর্বশেষ আপডেট

    জাতীয় পতাকা উত্তোলন অনুষ্ঠান বর্জন করলেন মুক্তিযোদ্ধারা

     

     
    নীলফামারীর ডোমারে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের পতাকা উত্তোলন অনুষ্ঠান বর্জন করেছেন বীর মুক্তিযোদ্ধাদের একাংশ। শনিবার (২৬ মার্চ) সকালে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে স্বাধীনতাবিরোধীর সন্তান উপস্থিত থাকার অভিযোগ এনে তারা অনুষ্ঠান বর্জন করেন। তাদের তীব্র প্রতিবাদে কারণে পতাকা উত্তোলনে চার মিনিট বিলম্ব ঘটে।

    অনুষ্ঠান বর্জনকারী ডোমার মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নুরননবী বলেন, ‘ডোমার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদের বাবা শওকত আলী সরকার একজন পাকিস্তানের দোসর ও রাজাকার ছিলেন। মুক্তিযোদ্ধাদের ত্যাগের বিনিময়ে স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে। 

    আর ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে আমাদের অর্জিত জাতীয় পতাকায় স্বাধীনতাবিরোধী পরিবারের কারও হাতের ছোঁয়া লেগে এ মহান জাতীয় দিবস কলঙ্কিত হোক- এটা চাই না। এ কারণে আমরা ওই অনুষ্ঠান বর্জন করেছি।’
    অনুষ্ঠান বর্জন করা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে রয়েছেন- পৌর কমান্ডের আহ্বায়ক ইলিয়াছ হোসেন, গোলাম রব্বানি, আব্দুল জব্বার কানু, আমিনুর রহমান, আশিকুর রহমান, ফজলুল করিম বজু, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের উপজেলা আহ্বায়ক আল আমিন রহমান, যুগ্ম আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান চয়ন।

    এ বিষয়ে জানতে উপজেলা চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদের মোবাইলে ফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ ধরেননি। তবে স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেন, ‘সাবেক কমান্ডার নুরননবী উপজেলা নির্বাচনে আমার কাছে পরাজিত হয়ে মিথ্যা প্রচারণা চালাচ্ছেন। এটা ভিত্তিহীন, যা সত্য নয়।

    ডোমার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবিনা শবনম এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি।


    প্রকাশিত: শনিবার ২৬ মার্চ ২০২২

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad