Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    ছাত্রলীগ নেতাকে ‘তুমি’ সম্বোধনে মারধরের শিকার শিক্ষার্থী হাসপাতালে

     


    কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের এক নেতাকে ‘তুমি’ সম্বোধন করায় এক সাধারণ শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। মারধরের শিকার মার্কেটিং বিভাগের ১৩তম ব্যাচের শিক্ষার্থী আনিছুর রহমান চোখে গুরুতর আঘাত নিয়ে কুমিল্লা মেডিক্যালের চক্ষু বিভাগে ভর্তি আছেন।

    শিক্ষার্থীর অভিযোগ- সোমবার (২১ মার্চ) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক সংলগ্ন ফটোকপি দোকানের পেছনে নিয়ে তাকে মারধর করেন ১২তম ব্যাচের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থী ওয়াকিল আহমেদ। ওয়াকিল বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হল শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। তার বিরুদ্ধে এর আগেও জুনিয়র এক শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ রয়েছে।মারধরের শিকার আনিছুর রহমান বলেন, ‘আমি চায়ের দোকানে বসেছিলাম। 

    তখন ওয়াকিল ভাই এসে আমাকে জিজ্ঞেস করে আমি কোন ব্যাচের। তিনি যে আমার সিনিয়র তা বুঝতে পারিনি। তাই তাকে তুমি বলে সম্বোধন করে বলি, আমি ভার্সিটির ১৩তম ব্যাচ। এরপর জানতে চাই, মিরাজ কি তোমার বন্ধু? এতে আমার সঙ্গে তার বাদানুবাদ হয়। পরে ফটোকপির দোকান থেকে ডেকে পেছনে নিয়ে আমাকে বেধড়ক মারপিট করা হয়। এসময় তিনি আমার চোখের নিচে আঘাত করেন। আমি আগেই চশমা ছাড়া চোখে কিছু দেখি না। তাই তাকে বারবার বলি আমার চোখ খুলে যাচ্ছে, আর মারবেন না।

     কিন্তু এরপরেও তিনি আমাকে ঘুষি মারতে থাকেন।’মারধরের অভিযোগ অস্বীকার ওয়াকিল আহমেদ বলেন, ‘আমি মারধর করিনি। সে আমাকে তুই বলে সম্বোধন করে এবং আমার মুখে সিগারেটের ধোয়া ছাড়ে। আমি এমন আচরণ করতে নিষেধ করি। এ সময় সেখানে কিছু ছেলে ছিল যাদের সঙ্গে তার হাতাহাতি হয়। সে হয়তো দৌড়ে পালাতে গিয়ে আঘাত পেয়েছে। কুমিল্লা মেডিক্যালের চিকিৎসকরা শিক্ষার্থীর সহপাঠীদের জানান, মেডিক্যালে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। চোখের আঘাতের মাত্রা ও পরবর্তী করণীয় নির্ধারণে মঙ্গলবার মেডিক্যাল বোর্ড বসে সিদ্ধান্ত নেবে। 

    বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসেন সবুজ বলেন, ‘আমার ইউনিটের সাধারণ সম্পাদকসহ সিনিয়র কয়েকজনকে ওই ছেলের কাছে পাঠিয়েছি। তার বক্তব্য নিয়ে আমরা মঙ্গলবার ওয়াকিলের বিষয়ে ব্যবস্থা নেবো।’
    প্রক্টর অধ্যাপক ড. কাজী কামাল উদ্দিন বলেন, আমি ঘটনা সম্পর্কে অবগত। জানা মাত্রই ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীকে মেডিক্যালে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছি। 

    অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আগে আমরা আহত শিক্ষার্থীর চিকিৎসা নিশ্চিত করছি। তারপর মঙ্গলবার প্রক্টোরিয়াল বডি বসে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে ব্যবস্থা নেবে।


    প্রকাশিত: মঙ্গলবার ২২ মার্চ ২০২২

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad