Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    নিজের করা মামলাতেই গ্রেপ্তার বাবুল আক্তার




    চট্টগ্রামে স্ত্রী মিতু হত্যায় নিজের করা মামলায় বাদী থেকে আসামি হলেন সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার। বাবুলের করা মামলায় তাকেই গ্রেপ্তার দেখানোর আদেশ দিয়েছে আদালত। রোববার চট্টগ্রামের অতিরিক্ত মূখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে শুনানি শেষে এ আদেশ দেয়া হয়।

    মিতু হত্যার ঘটনায় তার বাবার দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে এখন কারাগারে আছেন বাবুল আক্তার।


    এসময় তার আইনজীবী শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী বলেন, “তদন্তকারী সংস্থার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শুনানি শেষে আদালত বাবুল আক্তারকে নিজের করা মামলাতেই গ্রেপ্তারের আদেশ দিয়েছেন।”

    “অথচ তিনি একই ঘটনায় মিতুর বাবার করা অন্য মামলায় গ্রেপ্তার আছেন। একই ঘটনায় একসঙ্গে দুটি মামলা চলতে পারে না। আবার একই ঘটনায় দুই মামলাতেই গ্রেপ্তার কী করে হয়? শুনানিতে সবই বলেছি।”

    এ বিষয়ে সুরাহার জন্য হাই কোর্টে যাবেন জানিয়ে বাবুলের আইনজীবী বলেন, “যা হবার উচ্চ আদালতে হবে।”

    ২০১৬ সালের ৫ জুন, নগরীর জিইসি মোড়ে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয় সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আখতারের স্ত্রী মিতুকে। স্বামী বাবুলের আহাজারি গোটা দেশকে নাড়া দেয়। স্ত্রী হত্যায় বিচারের জোরালো দাবি তুলেছিলেন বাবুল। এমনকি মিতুর বাবাও প্রথম দিকে বাবুলকে রেখেছিলেন সন্দেহের তালিকার বাইরে।

    হত্যাকাণ্ডের পর নগরীর পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজনকে আসামি করে একটি মামলা করেছিলেন বাবুল আক্তার। কয়েক মাস পর পুলিশের চাকরি ছাড়তে হয়েছিল তাকে।

    তদন্ত করতে গিয়ে স্ত্রী হত্যায় খোদ বাবুল আক্তারের সম্পৃক্ততার তথ্য পাওয়ার কথা জানিয়ে গত বছরের ১২ মে ওই মামলায় আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয় পিবিআই। একইদিন বাবুলের শ্বশুর মোশারফ হোসেন বাদী হয়ে বাবুলসহ আটজনকে আসামি করে মামলা করেন।

    বাবুলের করা মামলাটি তদন্তের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দেয়া হলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আবু জাফর মোহাম্মদ ওমর ফারুক তদন্ত শেষে বাবুলকে মামলায় আসামি করার আবেদন করেন।
    , এই আদেশের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিলের কথা জানান বাবুলের আইনজীবী। ২০২১ সালের ১২ মে, থেকে শ্বশুরের করা মামলায় বাবুল আক্তার আছেন চট্টগ্রাম কারাগারে।

    প্রকাশিত: রবিবার ০৯ জানুয়ারি ২০২২

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad