Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    মারা যাওয়া সাফিয়া পেলো গোল্ডেন জিপিএ-৫

     

    অসুস্থতা নিয়েই এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছিল সাফিয়া সিলভী। পরীক্ষা শেষ হওয়ার কয়েকদিন পর গত ২৭ নভেম্বর পাড়ি জমায় পরলোকে। বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) প্রকাশিত হয়েছে এসএসসির ফল। মেধাবী সাফিয়া পেয়েছে গোল্ডেন জিপিএ-৫।

    তবে মেধার তীক্ষ্ণ স্বাক্ষর রাখা এ ফল সাফিয়ার পরিবারে খুশির বার্তা নিয়ে আসেনি। একমাত্র মেয়ে হারানোর শোক আরও বাড়িয়ে দিয়েছে এটি। মেয়ের রেজাল্ট শুনেই বাবা শফিকুল ইসলাম ও মা মরিয়ম খাতুন কান্নায় ভেঙে পড়েন।

    জানা গেছে, সাফিয়ার (১৫) বাড়ি রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার পুরান তাহেরপুর গ্রামে। শিক্ষিকা মা ও ব্যবসায়ী বাবার একমাত্র সন্তান ছিল সাফিয়া। একমাত্র মেয়েকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে কোনও কমতি রাখেননি। বাবা-মায়ের আশা আকাঙ্ক্ষা ও ভালোবাসার পরশে শিক্ষা জীবনে বরাবরই ভালো ফলাফল এনেছে সে। পিএসসি ও জেএসসি পরীক্ষার পর এবার এসএসসিতেও পেয়েছে গোল্ডেন জিপিএ-৫। আক্কেলপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছিল সে।

    পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, এসএসসি পরীক্ষা শুরুর তিন দিন আগে সাফিয়া হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। এর মধ্যেই বাসায় চিকিৎসা নিয়ে এক বিষয়ে পরীক্ষা দেয়। এরপর তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজশাহী শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তার অ্যাপেন্ডিসাইটিস ধরা পড়ে। অসুস্থ হওয়ার পরও সাফিয়া পরীক্ষা দিতে চায়। তাই অসুস্থ শরীর নিয়ে পরীক্ষায় অংশ নেয়। পরীক্ষা শেষে চিকিৎসকের পরামর্শে অস্ত্রোপচারের জন্য তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু ২৭ নভেম্বর অস্ত্রোপচারের আগেই মারা যায়।

    শফিকুল ইসলাম জানান, সাফিয়া তাদের একমাত্র সন্তান। লেখাপড়ায় খুবই ভালো ছিল। অসুস্থ অবস্থায় পরীক্ষা দিয়েও সাফিয়া এতো ভালো ফলাফল করেছে। এ ফলাফল মেয়ে হারানোর যন্ত্রণা বাড়িয়েছে।

    সাফিয়ার শিক্ষক ও মামা জাকিরুল ইসলাম বলেন, ‘সাফিয়া অকালে সবাইকে কাঁদিয়ে চলে গেছে। এসএসসিতে ভালো ফল করে শহরের ভালো কলেজে লেখাপড়ার প্রবল আগ্রহ ছিল। সেটা আর হলো না।

    প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২১

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad