Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    সেনবাগে চাঁদা না দিলে সড়কের ইট তুলে নেয়ার হুমকি ইউপি চেয়ারম্যানের



    মোঃইব্রাহিম নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ নোয়াখালীর সেনবাগে দাবীকৃত ৫০ হাজার টাকা না দিলে সড়কের ইট তুলে নেওয়ার হুমকি দিয়েছেন ৭নং মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রুহুল আমিন ভূঁইয়া। সড়কের ইট তুলে নিলেও কেউ তার কিছু করতে পারবে না বলে দম্ভোক্তিও করেছেন তিনি।

    স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার ৭নং মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ দলীয় চেয়ারম্যান রুহুল আমিন ভূইয়া মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড দক্ষিণ মোহাম্মদপুর গ্রামে এলজিএসপির অর্থয়ানে ৩ লক্ষ টাকা ব্যয়ে সুবল সাহার বাড়ির দরজায় ৬২০ ফুট ইটের সলিংয়ের কাজ শুরু করে।

     সড়কটির এক তৃতীয়াংশ কাজ করে বাড়ীর বাসিন্দাদের নিকট ৫০ হাজার টাকা দাবী করেন চেয়ারম্যান। ৫০ হাজার টাকা না দিলে এজিনের জন্য বসানো ইটগুলো তিনি তুলে নিবেন বলে বাড়ির বাসিন্দাদের হুমকি দেন। সড়কের ইটগুলো তুলে নিয়ে গেলে কেউ তার কিছুই করতে পারবে না বলেও তিনি দম্ভোক্তি করেন।

     এ ব্যাপারে সুবল সাহার বাড়ির মো. জনি অভিযোগ করে বলেন, উপজেলা পরিষদ থেকে এলজিএসপির অর্থায়ানে ৩ লাখ টাকা ব্যয়ে তাদের বাড়ির দরজার ৬২০ ফুট রাস্তার সলিংয়ের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়। কাজটি সয়ং ইউপি চেয়ারম্যান রুহুল আমিন ভূঁইয়া শুরু করেন। সড়কটি ১নং ইট দিয়ে করার কথা থাকলেও তিনি করছেন ২নং ইট দিয়ে। এছাড়াও  সড়কটির এক তৃতীয়ংশ কাজ করে অবশিষ্ঠ অংশের কাজ বন্ধ করে দিয়ে চেয়ারম্যান তাদের নিকট ৫০ হাজার টাকা দাবী করে তাদের বাড়িতে দোকানে লোক পাঠিয়ে ও নিজে মোবাইল ফোনে টাকা দিতে বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করতে থাকেন তিনি।

     তার দাবীকৃত টাকা না দেওয়ায় সড়কের কাজ বন্ধ করে রেখেছেন তিনি। এবং টাকা না দিলে সড়ক থেকে তিনি ইট তুলে নিয়ে যাবেন বলে হুমকি দেন।এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান রুহুল আমিন ভূঁইয়ার সঙ্গে তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি টাকা চাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, সড়কটি ৬ ফুট চওড়া হওয়ার কথা ছিলো। কিন্ত তিনি ৭ ফুট চওড়া করছেন এই জন্য তিনি ৫০ হাজার টাকা দাবী করেছেন।

    এ ব্যাপারে সেনবাগ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাইফুল ইসলামকে অবহিত করলে তিনি জানান, অভিযোগ পেলে তিনি আইনানুগ ব্যবস্থা নিবেন।



    প্রকাশিত: শনিবার ০৩ জুলাই, ২০২১

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad