Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    পরকীয়া প্রেমিককে হত্যা: প্রেমিকার স্বীকারোক্তি


    রাজধানীর গোপীবাগে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে পাঁচ খণ্ড করে সজীব হাসান (৩২) নামে এক যুবককে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন তার পরকীয়া প্রেমিকা শাহনাজ বেগম (৫০)।

    শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাদবীর ইয়াছির আহসান চৌধুরী আসামির জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

    এরপর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
    এদিন পুলিশ শাহনাজ বেগমকে আদালতে হাজির করে স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ডের আবেদন করে। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

    পুলিশ জানায়, শাহনাজের বয়স পঞ্চাশের উপরে। প্রায় ১৮ বছরের ছোট সজীবের সঙ্গেই তার দীর্ঘদিন পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক ছিল।  

    স্থানীয়রা জানান, গোপীবাগের কে এম দাস লেনের ৬ তলা ভবনের চতুর্থ তলায় ৫/৬ বছর ধরে বাস করে আসছিলেন শাহনাজ ও সজীব। সজীব পেশায় একজন টিকিট কাউন্টারম্যান ছিলেন।  

    সম্পর্কের সূত্র ধরেই তাদের মধ্যে ঝগড়া ও মনোমালিন্য হতো। ঘটনার দিন তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে শাহনাজ ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার মাথা, গলা, হাত-পাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে হত্যার পর খণ্ডিত করেন। পুলিশ এসে ওই বাসায় গিয়ে দেখে খণ্ডিত মরদেহের পাশে প্রেমিকা শাহানাজ বসে আছেন।

    গত বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) শাহনাজের আসল স্বামী স্ত্রী হারিয়ে গেছেন মর্মে ওয়ারী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। সজীবকে হত্যার পরপরই শাহনাজ তার আসল স্বামীকে ফোন করে আসতে বলেন। পরে শাহনাজের স্বামী পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে ওই বাসায় এসে সজীবের খণ্ডিত মরদেহ দেখতে পান। 

    প্রকাশিত: শুক্রবার ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

    Post Top Ad