Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    শ্রমিকের বকেয়া বেতন, আদায় করে নিজ হাতে দিলেন, পুলিশ!


    চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলী থানাধীন সাগরিকা মোড়ে অবস্থিত স্পেসিও এপারেলস গার্মেন্টসে শ্রমিকরা বকেয়া বেতন- ভাতার দাবিতে আন্দোলনে নেমেছে তারা গার্মেন্টসের বাহিরে এসে বিক্ষোভ করে। খবর পেয়ে  বিকেল তিন টার দিকে সেখানে পৌছান পাহাড়তলী জোনের সহকারি পুলিশ কমিশনার (এসি) আরিফ হোসেন। 

    আন্দোলনরত শ্রমিকদের  আশ্বস্ত করার চেষ্টা করেন। এসময় তিনি তাদের সাথে কথা বলে  জানতে পারেন তাদের সেপ্টেম্বর-অক্টোবর এবং নভেম্বর মাসের বেতন বকেয়া। গার্মেন্টস মালিক বেতন দিচ্ছে না, বকেয়া পরিশোধ না করে গার্মেন্টসে তালা লাগিয়ে দিয়েছে।

    এর পর সহকারি পুলিশ কমিশনার গার্মেন্টস কতৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করেন, কতৃপক্ষ তাদের  নানান সমস্যার কথা জানান। এর পর তিন তারিখ সকালে শ্রমিকদের বকেয়া বেতন-ভাতা পরিশোধ করতে রাজি হয়। তবে কতৃপক্ষ শর্ত দেয়, গার্মেন্টস এর ভিতরে তাদের কিছু মালামাল রয়েছে। মালামালগুলো পার্টিকে ডেলিভারি দিলে তারা কিছু টাকা পাবেন এবং সেই টাকা দিয়ে তারা শ্রমিকদের বেতন শোধ করবেন।

    কিন্তু শ্রমিকেরা কিছুতেই গার্মেন্টস এর ভিতরের মালামালগুলো ডেলিভারি দিতে দিবেনা। তারা জানান এই মালামালগুলো ডেলিভারি হয়ে গেলে মালিক আর কোনোদিনই গার্মেন্টসে আসবেন না এবং তারা তাদের বেতন ভাতা আর পাবে না।

    এ সময় পুলিশ কর্মকর্তা শ্রমিকদের উদ্যেশে শেষ বারের মত উনার উপর আস্থা রাখার জন্য অনুরোধ করেন। শ্রমিকরা পুলিশের কথায় বিশ্বাস করে এবং শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ থেকে সরে আসে। বিষয়টিকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

     আজ বৃহস্পতিবার ৩ ডিসেম্বর সকাল থেকে মালিকপক্ষের সাথে যোগাযোগ করতে থাকেন পুলিশের এই কর্মকর্তা। এসময় পাহাড়তলি  থানার একটি মোবাইল টিম সকাল থেকেই গার্মেন্টসের সামনে থাকতে বলেন, সারাদিনের প্রচেষ্টায় অবশেষে বিকেল তিনটার দিকে মালিকপক্ষের একজন প্রতিনিধি আসে।

    এসময় ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের কিছু সদস্যও ঘটনাস্থলে আসেন।  মালিক পক্ষের প্রতিনিধির উপস্থিতিতে মালামাল ডেলিভারি শুরু করেন পুলিশ। ডেলিভারি দেওয়া মালামালের সমস্ত টাকা ৫২ জন শ্রমিকদের মধ্যে  একমাসের আংশিক বেতন হিসেবে বিলি করে দেন। গার্মেন্টস মাত্র একমাসের আংশিক বেতন হিসেবে বিলি করে দেই। 

    এবং শ্রমিকদের বকেয়া বাকি টাকাগুলো জানুয়ারি মাসের ১০ তারিখের মধ্যে পরিশোধ করার আশ্বাস দেন। পুলিশের এমন আশ্বাস পেয়ে  শ্রমিকেরা আবার কাজে যোগদেন।

    এবিষয়ে পাহাড়তলী জোনের সহকারি পুলিশ কমিশনার (এসি) আরিফ হোসেন জানান, আবাক বিস্ময় দেখলাম শুধুমাত্র একমাসের আংশিক বেতন পেয়ে শ্রমিকরা ভীষণ খুশি। শ্রমিকদের বকেয়া বাকি টাকাগুলো জানুয়ারি মাসের ১০ তারিখের মধ্যে মালিক পরিশোধ করবে বলে কথা দেয়। আমার কথার প্রাথমিক সত্যতা পেয়ে শ্রমিকেরা তাদের বাকি বেতন-ভাতা মালিকের দেওয়ার সময়সীমার মধ্যে পেয়ে যাবে বলে বিশ্বাস করে। আমিও তাদেরকে আশ্বস্ত করি যে, বাকি বেতন ভাতা তাদেরকে আমি নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে আদায় করে দেব। নিজ হাতে সমস্ত টাকা গুনে বিলি করে দেই। এদের মধ্যে অনেকে আছেন যারা বেতন না পেয়ে চাকরি ছেড়ে চলে গেছে। তাদের বকেয়া বেতনও পরিশোধ করি।

    প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেমম্বর, ২০২০

    Post Top Ad