Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    মাদকের বিরুদ্ধে ছাত্র জনতার অভিযোগ।


    মোঃ ফজলুল হক ভুঁইয়া, ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ-  ত্রিশাল, ভালুকা ও ফুলবাড়ীয়া উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা খাগাটি ঈদগাহ ও মোক্ষপুর জামতলী গ্রাম মাদকের অভয়ারণ্যে পরিণত  হয়েছে বলে ব্যাপক অভিযোগ উঠেছে।

    এলাকাবাসী ও স্থানীয় স্কুল কলেজ পড়োয়া ছাত্ররা জানায়, মাদকের প্রাণকেন্দ্রখ্যাত খাগাটি ঈদগাহ উচ্চবিদ্যালয় সংলগ্ন ঈদগাহ বাজারে কনা ব্যারাইটিজ স্টোর নামে একটি দোকান থেকে প্রতিদিন তিন উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে পাচার হচ্ছে বিপুল পরিমান মাদক দ্রব্য।

    এব্যাপারে এলাবাসীর পক্ষ থেকে জেলা পুলিশ সুপার বরাবর একটি অভিযোগ করা হয়। অভিযোগটির তদন্ত ত্রিশাল থানার ওসির উপর ন্যস্ত হলে থানার এস আই কাইয়ুম ঘটনা তদন্তে এলাকায় যান। তিনি  অভিযুক্ত ও তাদের সহযোগীদের সামনে অভিযোগকারীদের ডেকে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করে। এতে অভিযোগকারীরা ভীতসন্তস্থ হয়ে পড়ে। পরে বিষয়টি লিখিত আকারে থানার ওসিকে জানাইলে তিনি এস আই কাইয়ুমকে ওই এলাকার দায়িত্ব থেকে প্রত্যার করে অভিযোগটি ভাল করে খতিয়ে দেখার জন্য ওসি তদন্তের উপর দায়িত্ব প্রদান করেন। ওসি তদন্ত সাদা পোষাকে অভিযুক্ত এলাকায় স্বশরীরে খোঁজ খবর নেন। পরে ওসি তদন্ত গত ১২ সেপ্টেম্বর অভিযোকারীদের থানায় ডাকলে কতক স্বাক্ষী ও এলাকার কিছু সংখ্যক সচেতন মানুষ ও স্কুল পড়োয়া ছাত্ররা এসে এলাকা মাদকমুক্ত করার দাবী জানায়।

    অভিযোগ কারীরা থানায় স্বাক্ষ দেয়ার পর উর্ধ্বতন আইন প্রয়োগকারী সংস্থার দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য সংবাদ প্রকাশের অনুরোধ জানিয়ে ত্রিশাল উপজেলা প্রেসক্লাবে এসে  অনুরূপ একটি অভিযোগ করার মাধ্যমে বিষয়ের ব্যাপারে সাংবাদিকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। ছাত্ররা জানায়, মাদক সেবীরা স্কুলের রাস্তা দিয়ে মাতাল ভঙ্গিমায় আশা যাওয়া করে থাকে। এতে ছাত্র-ছাত্রীদের সদা আতংকে স্কুলে আসা যাওয়া করতে হয়। এ বাস্তবতায় অনেক অভিভাবক তাদের ছেলে মেয়েদের অন্যত্র স্কুলে ভর্তি করার চিন্তা ভাবনা করছে বলেও অভিযোগকারীরা জানায়।

    অপর এক অভিযোগে জানা যায়, একজন মেম্বার ও তার আরেক প্রভাবশালী বন্ধু এইসব মাদক সেবীদের গড ফাদার হিসেবে কাজ করে নিজ এলাকায় নিজেদের আদিপত্য ধরে রেখেছে এবং আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছে। কেউ তাদের বিরুদ্ধে মুখ খোলতে চাইলে প্রাণে মেরে ফেলা বা বড় ধরনের  জটিল মামলায় ফাসানোর হুমকি ধমকি দিয়ে থাকে। বিধায় ইচ্ছা থাকলেও এলাকার শান্তি প্রিয় মানুষ প্রকাশ্যে প্রতিবাদ করার সাহস পাচ্ছেনা। মাদকে অশান্ত হয়ে উঠা এ এলাকাকে স্বাভাবিক পরিবেশে ফিরিয়ে আনতে প্রশাসনের নৈতিক পরিকল্পনার বিকল্প নাই এমনটাই মনে করছেন ভুক্তভোগী স্থানীয় সচেতন মহল।

    প্রকাশিত: বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad