Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    নোয়াখালীতে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার।

    মোঃ ইব্রাহিম, নোয়াখালীঃ  ছোট ফেনী নদীতে ঝাঁকি জাল দিয়ে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়া ৩ পর্যটকের মৃতদেহ পৃথক পৃথক সময়ে উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল। রোববার (১৬ আগস্ট) দুপুর ১২টার দিকে ঘটনার ২৭ ঘন্টা পরে ফেনীর দাগনভূঞা উপজেরার দেবরামপুর গ্রামের বাসিন্দা ও বসুরহাট বাজারের ব্যবসায়ী মো.মেহেদী হাসানের (২০) মরদেহ উদ্ধার করে ডুবুরি দল। সে ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার ৫নং ইয়াকুবপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের দেবরামপুর গ্রামের মো. শাহ আলমের ছেলে। 

    অপরদিকে, একই গ্রামের  ওমান প্রবাসী মো.আনোয়ার হোসেনের (৩৬) মরদেহ একই দিন সকাল ৭টার দিকে উদ্ধার করে ডুবুরি দল। সে ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার ৫নং ইয়াকুবপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের দেবরামপুর গ্রামের মো.সাহাব উদ্দি্নের ছেলে।

    এর আগে, ঘটনার ৭ ঘন্টা পর গতকাল শনিবার বিকেল ৫টার দিকে নজরুল ইসলাম স্বপন (৩৫) নামে আরও এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল। সে ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার ৫নং ইয়াকুবপুর ইউনিয়নের দেবরামপুর গ্রামের মৃত জয়নাল আবেদ্নের ছেলে।

     কোম্পানীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার জামিন মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেন।তিনি আরও জানান, দুপুর ১২টায়  নিখোঁজ ৩ পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার শেষে উদ্ধার কার্যক্রম সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়েছে। 

    উল্লেখ্য, গত শনিবার সকাল ১০টার দিকে ২৩জন পর্যটক মুছাপুর ক্লোজারে ঘুরতে আসে।  তাদের মধ্যে থেকে ৭জন ঝাঁকি জাল দিয়ে শখ করে ছোট ফেনী নদীর মিষ্টি পানির অংশে মাছ ধরতে নামে। এক পর্যায়ে হঠাৎ জোয়ারের পানিতে ৩ পর্যটক ডুবে যায়। পরে দু’দিন ধরে ছোট ফেনী নদীতে অভিযান চালিয়ে ডুবুরি দল ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার করে।



    প্রকাশিত: রবিবার ১৬, অগাস্ট ২০২০

    Post Top Ad