Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    নদীতে প্রভাবশালীদের অবৈধ বালু উত্তোলনে ক্ষত-বিক্ষত নদী

    কলাপাড়ায় রাবনাবাদ নদীতে প্রভাবশালীদেরঅবৈধ বালু উত্তোলনেক্ষত-বিক্ষত নদী, বাড়ছে নদী ভাংগন, নদীতেবিলীন হচ্ছে ফসলি জমি ॥

    রাসেল কবির মুরাদকলাপাড়া-পটুয়াখালীঃকলাপাড়ার রাবনাবাদ নদী থেকে প্রভাবশালীদের প্রতিনিয়ত অবৈধবালু  উত্তোলনে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে  কলাপাড়া, রাংগাবালীর নদী ওনদীপাড়ের পরিবেশ ও জীবন-জীবিকা। দীর্ঘদিন ধরে প্রভাবশালীদের এমন  ক্ষতির মুখে থাকলেও ভয়ে এনিয়ে প্রতিবাদ করতে পারছেনাভুক্তভোগী এলাকাবাসী। ক্ষত-বিক্ষত হচ্ছে নদী, বাড়ছে নদী ভাংগন।নদীতে  বিলীন  হচ্ছে  ফসলি  জমি, বসতভিটা, গৃহহীন  হচ্ছেনদীপাড়ের বাসিন্দারা।

    বন্ধ হয়ে গেছে এলাকার জেলেদের জীবিকা।ভাংগনের মুখে পড়েছে চলাচলের রাস্তা-কালভার্টসহ সংরক্ষিত বনাঞ্চল। সরজমিনে দেখা যায়, কলাপাড়ার রাবনাবাদ নদী থেকে প্রতিদিনঅন্তত: ১০/২০  টি ড্রেজার অব্যাহতভাবে বালু  উত্তোলন করছে। খানট্রেডার্সসহ বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান স্থানীয়  রাজনৈতিকপ্রভাবশালীদের সাথে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে প্রতিদিন বালু উত্তোলনকরছে। নদী হতে সনাতনী পদ্ধতিতে বালু উত্তোলনের ফলে কয়েক যুগধরে নদী ভাংগন কবলিত এই  এলাকায়  হঠাৎ   করে বেড়ে গেছে নদীভাংগন।
    নদীপাড়ের ফসলি  জমি, রাস্তাঘাট  ভেংগে  যাচ্ছে। দিনরাতড্রেজারের মেশিনের শব্দে নস্ট হচ্ছে পরিবেশ। চরম ঝুঁকির মুখে পড়েছেনদী ভাংগন কবলিত কলাপাড়ার ধুলাসর ও রাংগাবালীর ছোটবাইশদিয়া এলাকার নদীপাড়ের বসতভিটা, ফসলি জমি। ভাংগন ঝুঁকিতে পড়ছেচলাচলের রাস্তা-কালভাটসহ বন বিভাগের নদী তীরের ম্যানগ্রোভপ্রজাতির সংরক্ষিত বনাঞ্চল, বন্ধ হয়ে গেছে জেলেদের মাছ ধরা। কয়েকজন জেলে এ  প্রতিবেদককে  জানান, কঠোর  আইনী সুরক্ষায়দ্রুত বালু উত্তোলন বন্ধ করে নদী পাড়ের মানুষের জীবিকা-সম্পদ রক্ষাকরবে প্রশাসন। আগুনমুখা  ও রাবনাবাদ নদীতে মাছ ধরে জীবিকানির্বাহ করছি। বালু  উত্তোলনকারীদের লোড, আনলোড ড্রেজারেরকারনে এখন বন্ধ হয়ে গেছে জেলেদের মাছ ধরা। এনিয়ে প্রতিবাদ করতেগিয়ে হুমকী-ধামকির মুখোমুখি হতে হয় প্রতিনিয়ত।

    জেলা প্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরী বলেন, চিহ্নিত বালুমহালেরবাইরে বালু উত্তোলনকারীদের ধরে  ভ্রাম্যমান  আদালতের  মাধ্যমে জেল-জরিমানাসহ  নিয়মিত মামলা দেয়া হয়েছে। এছাড়াও যারা  অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের চেস্টা করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনীব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এ প্রতিবেদককেজানান, নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকারীরা সারা দেশেইসক্রিয়। এদের বিরুদ্ধে প্রশাসন সক্রিয় রয়েছে। আইনী ব্যবস্থানেয়া হচ্ছে। এখানকার বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধেও কঠোর আইনীব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

    প্রকাশিত: শুক্রবার ১৪, অগাস্ট ২০২০

    Post Top Ad