Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    কারখানা বন্ধ করে দেয়ায় শ্রমিকদের বিক্ষোভ! পুলিশের লাঠিচার্জ, আহত দশ!

    মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম, গাজীপুরঃ- গাজীপুরের টঙ্গীর গাজীপুরা এলাকায় শনিবার (২৫জুলাই) কারখানা বন্ধ করে দেয়ায় বিক্ষোভ করেছে পোশাক শ্রমিকরা। শ্রমিকরা সকাল ৮টায় কাজে যোগ দিতে এসে দেখে কারখানার গেইটে বন্ধের নোটিশ। এ সময় ওই কারখানার শ্রমিকরা জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করে। পরে ঢাকা- ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করেন।

    খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে শ্রমিকদের  মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দিতে চাইলে পুলিশের সাথে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ার শেল ও শটগানের গুলি ছোড়লে এতে প্রায় ১০জন শ্রমিক আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে টঙ্গীর বিভিন্ন হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

    গাজীপুর শিল্প পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার এস আলম বলেন, আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে ১০ দিনের ছুটির জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানান শ্রমিকরা। কিন্তু কারখানা কর্তৃপক্ষ ৮ দিন ছুটি ঘোষণা করেন। এ নিয়ে গত কয়েকদিন কারখানার ভেতরে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করে। পরে শ্রমিকদের দাবি মেনে না নিয়ে কারখানা বন্ধের নোটিশ দেয়। এতে শ্রমিকরা কারখানার  প্রধান ফটকে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করতে থাকেন।
    তিনি আরো বলেন, সকাল ৮ টার দিকে শ্রমিকরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ওপর অবস্থান নিয়ে অবরোধ করে। এতে মহাসড়কের উভয় দিকে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে দীর্ঘ যান জটের সৃষ্টি হয়। এ সময় ক্ষুব্ধ হয়ে আন্দোলনরত শ্রমিকরা মহাসড়কে গাড়ি ও বিভিন্ন স্থাপনায় ভাঙচুর করে। পুলিশ বাধা দিলে শ্রমিকরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাথর ছুড়তে থাকেন। পুলিশ লাঠিচার্জ করলে শ্রমিকদের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। এ ঘটনায় পুলিশসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়।

    এক পর্যায়ে পুলিশ ১০-১২ রাউন্ড টিয়ার শেল ও শটগানের গুলি ছোড়ে। প্রায় একঘণ্টা পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে মহাসড়কে যানবাহন চলা শুরু হয়।

     কারখানার মানব সম্পদ বিভাগের প্রধান আবু হেনা মোস্তফা কামাল বলেন, শ্রমিকদের দশ দিনের ছুটির দাবি করলে ৮ দিনের ছুটি মঞ্জুর করা হয়েছে। এর পরেও আন্দোলন? এটি অযৌক্তিক।

    প্রকাশিত: শনিবার ২৫, জুলাই ২০২০

    Post Top Ad