Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    মার্শাল আর্ট শিখুন নিজেকে নিরাপদ ও সুস্থ রাখুন।

    Learn martial arts to keep yourself safe and healthy.
    Learn martial arts to keep yourself safe and healthy.
    মার্শাল আর্ট একটি শিল্প, ক্রীড়া ও আত্মরক্ষার কৌশল হিসেবে এটি সারা বিশ্বে জনপ্রিয়। সুপ্রাচীন কাল থেকেই মার্শাল আর্টের প্রচলন রয়েছে। যেকোন বয়সী মানুষ নিয়ম মেনে এই চর্চা করতে পারেন। তবে যাদের মেরুদণ্ড ও হৃদযন্ত্রের সমস্যা আছে, তারা মার্শাল আর্ট চর্চার আগে আবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

    মার্শাল আর্ট শিখুন নিজেকে নিরাপদ ও সুস্থ রাখুন।

    এখন জেনে নিন মার্শাল আর্টের কয়েকটি উপকারিতা সম্পর্কে :-
    1. মার্শাল আর্ট চর্চার ফলে শরীরের প্রায় সব মাংসপেশি বিভিন্ন মাত্রায় ব্যবহৃত হয়। ফলে এসব মাংসপেশির নমনীয়তা, ভারসাম্য ও শক্তি বাড়ে। এবং নানা ধরনের ব্যথা ও হাড়ের জোড়া বা সন্ধির সমস্যা নিয়ন্ত্রণে থাকে।

    2. হৃদযন্ত্রের সক্ষমতা বাড়ায়। কেননা মার্শাল আর্ট একটি উচ্চমাত্রার ব্যায়াম। এই ব্যায়ামের ফলে নিঃশ্বাসের সাথে টেনে নেয়া অক্সিজেন ফুসফুস ও হৃদযন্ত্রের কার্যক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।

    3. এক ঘন্টা মার্শাল আর্ট চর্চায় প্রায় পাঁচশো ক্যালরি ক্ষয় হয়। ফলে ওজন নিয়ন্ত্রণ করা যায়। এছাড়া এটি নিয়মিত চর্চা করলে মস্তিষ্কের ক্ষুুধা ও তৃপ্তি নিয়ন্ত্রক এলাকার ওপর প্রভাব পড়ে। তখন অতিরিক্ত খাবার গ্রহণের প্রবনতা কমে।

    4, এটি পরীক্ষিত। গবেষণায় দেখা গেছে, দৈনন্দিন জীবনে মার্শাল আর্টের বড় ধরনের প্রভাব পড়ে। এটি আনুশীলন কারীরা দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে ও কাজ করতে সক্ষম হয়ে ওঠেন।

    5, একজন মার্শাল আর্টিস্ট তার প্রতিটি লাথি (কিক) বা ঘুষির (পান্চ) ফাঁকে নিজের দুর্বলতা গুলো টের পান, নিজেকে চেনেন। নিজেকে যত চেনা যায়, ততই তাঁর মনোনিবেশ করার ও নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার ক্ষমতা বাড়ে। এর একটা চমৎকার ইতিবাচক প্রভাব পড়ে ব্যক্তিগত ও কর্মজীবনে।

    6, গবেষকদের মতে, মার্শাল আর্টের সবচেয়ে ইতিবাচক দিক হলো, এটি মানুষের আত্মবিশ্বাস অনেক গুন বাড়িয়ে দেয়। যেকোন পরিস্থিতিতে যেকোন সমস্যা সামলে নেয়ার মতো সাহস জোগায়।

    7, এটি যুদ্ধের কৌশল হলেও মার্শাল আর্ট মানুযের আগ্রাসী মনোবৃত্তি ও হিংস্রতাকে দমন করে। কারণ: এর নৈতিক উদ্দেশ্য, বিধিনিষেধ এবং বাধ্যবাধকতা। ধৈর্যশীল ও শান্ত থাকা এবং অন্তর্দৃষ্টি অর্জন - কুংফুর এই তিন মূলমন্ত্র মানুষকে অশুভ দমনে সাহায্য করে।

    8, মার্শাল আর্ট চর্চায় মস্তিস্ক থেকে এন্ডোরফিন নামের জৈব রসায়নিক পদার্থ নিঃসৃত হয়। এটি বিষণ্ণতা দূর করে ও সুখের অনুভূতি বাড়ায়। মার্শাল আর্ট অনুশীলনের পর চার ঘন্টা পর্য্যন্ত রক্তে উচ্চমাত্রায় এন্ডোরফিন থাকে।

    ( আপনি মার্শাল আর্ট শিখুন আপনার সন্তান কে শিখান নিরাপদ ও সুস্থ থাকুন)

    প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই, ২০২০

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad