Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    খুলনা বিভাগের সাত এলাকায় করোনা শনাক্ত, এলাকা লকডাউন।

                        

    আজিজ মোড়ল, মংলা প্রতিনিধিঃ খুলনা জেলায় করোনাভাইরাসের সামাজিক সংক্রমণের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। জেলায় ১৪ জন আক্রান্ত হলেও রোগীরা আলাদা ৭টি এলাকার বাসিন্দা হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন চিকিৎসকরা।

    এদিকে খুলনা বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় আরও ২১ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত খুলনা বিভাগে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে ১৪১ জন। মৃত্যু হয়েছে তিনজনের।

    সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ১৪ এপ্রিল প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় খুলনায়। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ১৬ দিনে রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৪ জন। এর মধ্যে নগরীর সাতজন এবং রূপসা উপজেলার সাতজন। নগরীর সাতজন দৌলতপুর থানার মহেশ্বরপাশা কালিবাড়ি, নিরালা প্রান্তিকা আবাসিক এলাকা, খুলনা মেডিকেল কলেজ গেস্ট হাউজ ও করীমনগর এলাকার। আর রূপসা উপজেলার মধ্যে কাজদিয়া, রাজাপুর ও দেয়াড়া-এই তিনটি আলাদা এলাকার বাসিন্দা সাতজন।

    খুলনা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. আব্দুল আহাদ বলেন, খুলনা জেলায় রোগীর সংখ্যা ১৪ জন হলেও রোগীরা যেহেতু আলাদা আলাদা এলাকার বাসিন্দা, উদ্বেগের বিষয়টি এখানে। ফলে ধরে নিতে হবে, হতে পারে খুলনায় সামাজিক সংক্রমণ শুরু হয়ে গেছে, যা খুবই উদ্বেগজনক। এখনই কঠোর পদক্ষেপে সামাজিক সংক্রমণ ঠেকানোর দাবি জানিয়েছেন তিনি। না হলে পরিস্থিতি খুবই ভয়ানক হতে পারে। এতে করে মানুষ জানবেই না, তারা কেমন করে, কখন কার মাধ্যমে আক্রান্ত হচ্ছেন।

    খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক রাশিদা সুলতানা জানান, ৭ এপ্রিল থেকে খুলনায় করোনা পরীক্ষা শুরু হয়। এরপর এখন পর্যন্ত বিভাগে ১৩৯ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে,মৃত্যু হয়েছে তিনজনের। হাসপাতালে ভর্তি  রয়েছেন আক্রান্তদের ২৫জন, বাকিরা বাড়িতেই চিকিৎসা নিচ্ছেন।

    তিনি আরও জানান, যশোর জেলাতেই করোনা পজিটিভ সবচেয়ে বেশি। শুধুমাত্র যশোরেই ৫৬ জন। ২১ জন পজিটিভ নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে ঝিনাইদহ জেলা। এছাড়া কুষ্টিয়া জেলায় ১৬ জন, খুলনা জেলায় ১৪ জন, নড়াইল জেলায় ১৩ জন, চুয়াডাঙ্গা জেলায় ৯ জন, মাগুরা জেলায় ৫ জন, মেহেরপুর জেলায় ৩ জন, বাগেরহাট জেলায় ৩ জন ও সাতক্ষীরা জেলায় ১ জন পজিটিভ রয়েছে।

    দিগন্ত নিউজ ডেস্কঃএস বি কে


    প্রকাশিত: রবিবার, ০৩ মে, ২০২০

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad