Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    বাগমারায় চিকিৎসা দিতে রোগীর বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন চিকিৎসক


    মুকুল হোসেন,বাগমারা(রাজশাহী)::  রাজশাহীর বাগমারায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা। করোনা ভাইরাস সংকটকালে যখন চিকিৎসকদের অনেকেই প্রাইভেট প্রাকটিস বন্ধ করে দিয়েছেন, সেই সাথে অনেক ক্লিনিকও বন্ধ করে রেখেছেন ক্লিনিক মালিকরা, সেখানে বাগমারা উপজেলার চিকিৎসকেরাই ছুটে যাচ্ছেন রোগীদের বাড়ি বাড়ি। জ্বর, সর্দি, কাশিসহ সাধারণ রোগ নিয়ে আর হাসপাতালে যেতে হচ্ছে না লোকজনকে। এভাবেই মাস খানেক ধরে রোগীদের খুঁজে খুঁজে বাড়িতে গিয়ে চিকিৎসা দিচ্ছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা।

    বাগমারা আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের প্রচেষ্টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চালু করেছে ভ্রাম্যমান এই চিকিৎসা সেবা ব্যবস্থা। করোনা সংকট মূহুর্তে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চালু করা হয়েছে হটলাইন নম্বর। যে কোন সময় ফোন করলেই পাওয়া যাচ্ছে সেবা। গুরুতর হলে চিকিৎসক সঙ্গে সঙ্গে ছুটে যাচ্ছেন সেই রোগীর বাড়িতে।

    বিশেষ করে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুর সহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা লোকজনদের খুঁজে বের করে তাদের বাড়িতে গিয়ে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এই উদ্যোগ এলাকায় সাড়া ফেলেছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের এই সংকটকালে হাতের কাছে সরকারি চিকিৎসক পাওয়ায় অনেকের মনোবল বৃদ্ধি পেয়েছে।

    উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সর কয়েকজন চিকিৎসক জানান, স্থানীয় এমপি এনামুল হক চিকিৎসকদের হাতে সুরক্ষা সরঞ্জাম তুলে দিয়ে রোগী দেখার ক্ষেত্রে তাদের মানবিক হতে আহবান জানান। এমপির কথা তাদের মনে দাগ কাটে। মাস খানেক ধরে রোগীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে চিকিৎসাসেবা দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেন তারা।

    প্রথমে ইউনিয়ন পর্যায়ে গিয়ে স্বাস্থ্যকর্মীরা রোগীদের খুঁজে বের করেন। তবে চিকিৎসা দেওয়ার ক্ষেত্রে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা লোকজনদের বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়। অনেক রোগী মোবাইল ফোনে তাদের সমস্যার কথা জানিয়ে চিকিৎসাসেবা দেয়ার কথা বলেন।

    এরই মধ্যে উপজেলার অর্ধশতাধিক রোগীর বাড়িতে গিয়ে চিকিৎসা প্রদান করেছেন বাগমারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা। চিকিৎসক দলের সদস্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাঃ আব্দুল মোতালেব এবং আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ আমিরুল ইসলাম বলেন, মোবাইল ফোনে কিংবা স্বাস্থ্যকর্মীর কাছ থেকে তথ্য পেয়ে রোগীদের বাড়িতে গিয়ে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এছাড়া সন্দেহভাজন রোগীর নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে। তাদের চিকিৎসায় সেরে যাচ্ছেন রোগীরা। বাড়িতে সরকারি চিকিৎসক পেয়ে রোগীরাও খুব খুশি।

    উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডাঃ গোলাম রাব্বানী বলেন, জ্বর, সর্দি, কাশির চিকিৎসা দেয়া ছাড়াও অন্যান্য অনেক রোগের সমস্যার সমাধান করা হচ্ছে। জটিল ও বড় রোগের চিকিৎসা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেই করা হচ্ছে। বাড়িতে গিয়ে চিকিৎসা দেয়ার ফলে গুজব বা ভুল বোঝাবুঝি কম হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, চিকিৎসক, রোগী এবং জনসাধারণের নিরাপত্তার কথা ভেবেই বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনা সংকটকালীন সময়ে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হচ্ছে।

    বাগমারা আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক জানান, হাসপাতালে গিয়ে মানুষ অনেক সময় চিকিৎসক পায় না। বর্তমানে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় উঠে পড়ে লেগেছে সরকার। কোন রোগী যেন চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত না হয়, সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী কড়া নির্দেশনা প্রদান করেছেন। বাগমারা উপজেলা জুড়ে রোগীরা এখন বাড়িতে বসে চিকিৎসা পাচ্ছেন।


    প্রকাশিত: শনিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২০

    Post Top Ad