Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    মৃত সন্তানকে কোলে নিয়ে মাইলের পর মাইল হাঁটলেন মা (ভিডিও সহ)


    করোনা ভাইরাসে ভারতে প্রতিনিয়ত বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এ কারণে লকডাউনের সময় সীমা বাড়িয়েছে দেশটির বেশ কয়েকটি রাজ্য। লকডাউনের কারণে চলছে না গাড়ি। পাওয়া যাচ্ছে না অ্যাম্বুলেন্স। এমন সময়ে ঘটে গেল এক হৃদয় বিদারক ঘটনা।

    সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিওতে দেখা যায়, ৩ বছরের নিথর ছেলের দেহ নিয়ে মাইলের পর মাইল হাঁটলেন মা! তিন মিনিট দীর্ঘ হৃদয় বিদারক ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে। দেখা যাচ্ছে, একজন মহিলা বিভ্রান্ত হয়ে কেঁদে চলেছেন। তার কোলে মৃত সন্তান।  

    বিহারের রাজধানী পাটনা  থেকে ৪৮ কিলোমিটার দূরে জেহানাবাদ। রাজ্য সরকার পরিচালিত একটি হাসপাতালে মৃত্যু হয় এক শিশুর। হাসপাতাল ব্যবস্থা করে দিতে পারেনি অ্যাম্বুলেন্সের। তাই বিহারের এই দম্পতি বাধ্য হলেন নিথর সন্তানের দেহ নিয়ে এক হাসপাতাল থেকে আর এক হাসপাতলে হাঁটতে। শিশুটির মা-বাবা দুজনেই অভিযোগ করে বলেন, সময়মতো চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া সম্ভব হয়নি।


    শিশুটির বাবা গিরজ কুমার জানান, ‘বাচ্চাটি দুদিন আগে অসুস্থ হয়েছিল। জ্বর, সর্দি, কাশি হয়েছিল। শাহপুরে গ্রামের ডাক্তার তার চিকিৎসা করছিল, হঠাৎই বাচ্চার অবস্থা খারাপ হয়। তখন আমরা একটা টেম্পো ভাড়া করে জেহানাবাদের হাসপাতালে নিয়ে আসি ওকে। আমরা কোনও অ্যাম্বুলেন্স পাইনি লকডাউনের জন্য।’  

    "জেহানাবাদে নিয়ে গেলে, সদর হাসপাতালের ডাক্তাররা বাচ্চাকে পাটনা মেডিকেল কলেজ এবং হাসপাতালে রেফার করে। কিন্তু আমরা অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করতে পারিনি। আর এই অবহেলার কারণেই আমরা আমাদের সন্তানকে হারালাম," জানিয়েছেন মৃত শিশুর বাবা।


    যেখানে বিষয়টা জীবন এবং মৃত্যুর, শুধুমাত্র লকডাউনের কারণেই যে বিশেষ ব্যবস্থার মাধ্যমে শিশুকে নিয়ে যাওয়া উচিত ছিল, তা পেলাম না। জানিয়েছেন তিনি। যদিও সন্তান মারা যাওয়ার পর ওই ব্যক্তি এবং তার স্ত্রী, স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতায় বাড়ি ফেরেন। এই ভিডিওটি দেখার পর, ওই রাজ্যে সঠিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থা কোথায়- এই নিয়ে একের পর এক প্রশ্ন ছুঁড়ে দেওয়া হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

    একজন ব্যক্তি লিখেছেন, ‘হৃদয় ভেঙে দেওয়া এই দৃশ্য বিহারের। যেখানে লকডাউনের মধ্যে একজন মা, তার মৃত সন্তানের দেহ নিয়ে অ্যাম্বুলেন্সের অভাবে মাইলের পর মাইল হাঁটছেন।’



    প্রকাশিত: সোমবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২০

    Post Top Ad