Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    বাজারগুলোতে নেই শারীরিক দূরত্বের বালাই, বাড়ছে ঝুঁকি | Digonto News BD

    মাধবপুরে তেলিয়াপাড়া, নয়াহাটি, শাহপুরসহ বাজারগুলোতে নেই শারীরিক দূরত্বের বালাই, বাড়ছে ঝুঁকি ।

    পিন্টু অধিকারী,মাধবপুর(হবিগঞ্জ)::  বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে কিছু দিন আগে মাধবপুর পৌরসভার একটি কাঁচাবাজারকে সাময়িকভাবে সরিয়ে স্টেডিয়াম মাঠে নেয়া হয়েছে।

    এছাড়া মাধবপুর উপজেলার অন্যান্য বাজার আগের স্থানেই আছে। কিন্তু এর পরেও শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হচ্ছে না। সকল ধরণের মানুষ একসাথে গায়ে গা ঘেষে বাজার করছে। ফলে আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে করোনা ঝুঁকি। ক্রেতাদের অভিযোগ- সকাল ৮টা থেকে ২টা পর্যন্ত সময় নির্ধারণ করে দেওয়ার ফলে একসাথে এই বাজারগুলিতে প্রচুর মানুষের সমাগম হয়।

    এছাড়া তুলনামূলকভাবে জায়গা অনেক কম থাকায় গা ঘেষাঘেষি করেই কেনাকাটা করতে হয় ক্রেতা-বিক্রেতাদের। ইচ্ছে থাকলে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে পারছে না তারা। ফলে বাজার করতে গিয়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি বৃদ্ধি পাচ্ছে ক্রেতা-বিক্রেতাদের।

    রবিবার (১২ এপ্রিল) সকালে উপজেলার তেলিয়াপাড়া, নয়াহাটি, শাহপুরসহ বেশ কয়েকটি বাজারে ঘুরে দেখা গেছে ক্রেতারা গা ঘেঁষাঘেঁষি করে সবজি ও মাছ ক্রয় করছে। পুলিশ প্রশাসন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নির্দেশ দিলে ও কাজ হচ্ছে না ক্রেতাদের দূরত্ব। পার্শ্ববর্তী বিজয়নগর উপজেলায় করোনা সনাক্ত হওয়ায় অনেকে চিন্তিত হলেও নিরূপায় হয়ে এই পরিবেশে কেনাকাটা করতে বাধ্য হচ্ছে সবাই। এব্যাপারে অনেকেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ক্ষুব্দ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করছেন।

    সুধি মহল বলছেন- বাজার থেকে আমরা করোনা নিয়ে যেতে চাই না বাড়িতে। পৌরসভার কাচামালের বাজারটির মতো সবগুলো কাচামালের বাজার নিকটবর্তী কোন বড় খেলার মাঠে স্থানান্তর করলে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হবে বলে সাধারণ মানুষ মনে করে।


    প্রকাশিত: রবিবার, ১২ এপ্রিল, ২০২০

    Post Top Ad