Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    চসিক ৯,১০,১৩, সংরক্ষিত ওয়ার্ডে আঃলীগ মনোনীত প্রার্থী নিয়ে চরম বিতর্ক | Digonto News BD


    চসিক ৯,১০,১৩, সংরক্ষিত ওয়ার্ডে আঃলীগ মনোনীত প্রার্থী বিতর্ক, নেতাকর্মীর আস্থা বর্তমান কাউন্সিলরে।

    আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৯, ১০, ১৩, নং ওয়ার্ডে সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন বিতর্কিত মহিলা নেত্রী তাসলিমা বেগম নুরজাহান, অভিযোগ রয়েছে তিনি আওয়ামীলীগ এর অঙ্গসংগঠন মহানগর মহিলা আওয়ামীলীগের সদস্য হলেও, মহানগর আওয়ামীলীগের সদস্য বলে পরিচয় দিয়ে মনোনয়ন হাতিয়ে নিয়েছেন।

    এতে যেমন সমালোচনার ঝড় উঠেছে সোশাল মিডিয়ায়, আবার হতাশা ও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে অত্র ওয়ার্ডে গুলোর তৃনমূল নেতাকর্মী মহিলা নেত্রীসহ জনসাধারণের মাঝে। 

    গত মাসের ১৯ ফেব্রুয়ারি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডের সভা শেষে ঘোষণা করা হয় এই প্রার্থীর নাম তবে কে এই তাসলিমা বেগম চেনেন না সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের অনেকেই। 

    তাসলিমা বেগম ছাড়াও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৯,১০,১৩ সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন - বর্তমান সংরক্ষিত কাউন্সিলর, মহানগর মহিলা আওয়ামীলীগের ৩ বারের নির্বাচিত সদস্য, ও ১০ নং ওয়ার্ড মহিলা আওয়ামীলীগ এর আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী আবিদা আজাদ।

    তাসলিমা বেগম হঠাৎ করে মনোনয়ন কেন্দ্রীক আলোচনায় আসলেও, সংরক্ষিত ৯,১০,১৩ ওয়ার্ডে আওয়ামীলীগ এর নিবেদিত প্রান আবিদা আজাদ।

    জানাগেছে বীর মুক্তিযুদ্ধার স্ত্রী আবিদা আজাদ দীর্ঘ ৪৫ বছর ধরে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত আওয়ামীলীগ এর দুর্দিনে  দূরদর্শী ভূমিকা রেখেছেন এই নারী নেত্রী, আন্দোলন সংগ্রামে নিজেকে সপে দেন আগের কাতারে, একাধিকবার জামাত বিএনপির হামলার শিকারও হতে হয়েছে এই নেত্রীকে তবুও হাল ছাড়েননি দলের।

    ৯, ১০, ১৩ নং ওয়ার্ডের একাধিক ছাত্রলীগ যুবলীগ ও মহিলা নেত্রীরা জানান এইসব ওয়ার্ডের মাটি ও মানুষের সাথে মিশে আছেন আওয়ামী রাজনীতির নিবেদিত প্রান আবিদা আজাদ প্রতিটা আওয়ামীলীগ পরিবার নেতা কর্মীদের সাথে সুসম্পর্ক রয়েছে তার, দলের দুর্দিনে নেতাকর্মীদের ছেড়ে পালিয়ে যাননি তিনি, সব সময় নেতাকর্মীদের পাশে ছিলেন তিনি।

    সাংগঠনিক ভাবে তিনি সব সময় শক্ত অবস্থানে রয়েছেন, তৃনমূল কর্মীদের সাংগঠনিক ভাবে সব সময়  চাঙ্গা রেখেছেন।  

    তাসলিমা বেগম কে এই ওয়ার্ডের কজনই বা চেনেন, এখানে নেই তার স্থায়ী কোন বসতি কিছুদিন পর পর বিভিন্ন জায়গায় থাকেন বাসা ভাড়া নিয়ে,অভিযোগ আছে উনার পরিবার বিএনপি ঘেষা তার সামি হত্যা মামলার আসামী, তার দুই ভাই বিএনপির রাজনীতির সাথে সরাসরি জড়িত, নাসকতার মামলা রয়েছে তার ভাই দের নামে।

    সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের সংগঠনের সাথে কোন সম্পর্ক নেই তার,  এমন এক ব্যাক্তিকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ায় আমরা সত্যি হতাশ, এটা মেনে নিতে পারছিনা। 

    আমরা দলের সাধারণ  কর্মীরা কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে অনুরোধ করবো মনোনয়ন বোর্ড যেন জনপ্রিয়তা যাচাই করে, এবং কাউন্সিলর প্রার্থীতা উম্মক্ত করে দেন।

    অন্য দিকে দলের একান্ত মনোনয়ন পেয়ে সুবিধা স্থানের রয়েছেন ৯,১০,১৩ নং ওয়ার্ডে বিএনপির সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী ছকিনা বেগম, তৃনমূলের ধারনা যদি আওয়ামীলীগ শক্ত প্রার্থী দিতে না পারে তবে ৯.১০.১৩ নং ওয়ার্ড হারাতে পারে আওয়ামীলীগ।


    প্রকাশিত: শনিবার, ০৭ মার্চ, ২০২০

    Post Top Ad