• সর্বশেষ আপডেট

    ৯নং উত্তর পাহাড়তলী ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস, জনসমুদ্রে পরিনত

      

    ৯নং উত্তর পাহাড়তলী ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস, জনসমুদ্রে পরিনত

    ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতার ৪৮ তম শাহাদাত বার্ষীকি  উপলক্ষে ৯ নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড শোকসভা আয়োজক কমিটি’র উদ্যোগে  আয়োজিত শোকসভা জনসমুদ্রে পরিনত হয়েছে।

    গত কাল (৩১আগস্ট) বৃহস্পতিবার ৯ উত্তর পাহাড়তলী  পূর্ব ফিরোজশাহ বঙ্গবন্ধু চত্বরে এ শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

    ৯ নং  উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি হাজ্বী এ কে এম  ইলিয়া খাঁন এর সভাপতিত্বে শোক সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহাতাব উদ্দিন চৌধুরী। সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র আ. জ. ম নাছির উদ্দিন।

    প্রধান অতিথি মাহতাবউদ্দিন চৌধুরী বলেন,আগামী নির্বাচনে বিএনপি,জামাত – শিবিরের সাথে মোকাবিলা করতে হবে। তাদের সাথে মোকাবিলা করে শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় আনতে হবে

    প্রধান বক্তা আ. জ. ম নাছির উদ্দিন বলেন,বিএনপি ক্ষমতায় গেলে উগ্র সাম্প্রদায়িক শক্তির উত্থান হবে। দেশে আবারও বাংলা ভাইদের উত্তান হবে। তাই  বিএনপি -জামাত’কে আর কখনো ক্ষমতায় আসতে দেয়া যাবে না। তিনি আরও বলেন,বঙ্গবন্ধু সারাজীবন জনগণের জন্য রাজনীতি করেছেন, আমাদের উচিত তার আদর্শে উজ্জীবীত হয়েই রাজনীতি করা।

    শোকসভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন,১০ নং উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সাবেক প্যানেল মেয়র ড.নিছার উদ্দিন আহমেদ মন্জু,কাউন্সিলর মন্জু বলেন, আওয়ামী  সরকারের বিরোদ্ধে বিএনপি – জামাতের  অপপ্রচার সফল হতে দেওয়া যাবে না, শেখ হাসিনার উন্নয়নের চিত্র তৃনমুল পর্যায়ের মানুষদের মাঝে তুলে ধরতে হবে।

    শোকসভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন ৯ নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক আলহাজ্ব মোঃ জহুরুল আলম জসিম।

    কাউন্সিলর জসিম তার বক্তব্যে বলেন,আমার বাবা মরহুম একে এম আবিউল হক এই এলাকার আওয়ামী লীগ নেতা ছিলেন, ছোট বেলা থেকে বাবার আদর্শে অনুপ্রানিত হয়ে আমি তখন ছাত্রলীগ করতাম, কিন্তু দুঃখের বিষয় স্বাধীনতার পর থেকে ৯ নং ওয়ার্ডে কোন উন্নয়ন হয়নি, নাছির ভাই মেয়র হওয়ার পর থেকে  ৯ নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ডে ব্যাপক উন্নয়নের মাধ্যমে এলাকার চিত্র পালটে যায়, তিনি বলেন, আমরা আওয়ামীলীগ করি জনগণের কল্যাণ ও এলাকার উন্নয়ন করার জন্য। তাই এই এলাকার মানুষ আমাকে বার বার কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত করেছেন। তিনি আগষ্ট মাসের শেষ দিনে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের হত্যাকারীদের নেপথ্য নায়ক জেনারেল জিয়াসহ সকলের মরনোত্তর বিচার দাবি করেন। জসিম আরও বলেন, সামনে আসন্ন সাধারণ নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগকে পুনরায় নির্বাচিত করে দেশকে স্মার্ট বাংলাদেশে রুপান্তরিত করে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার ভ্যানগার্ড হিসেবে আওয়ামীলীগ,যুবলীগ,ছাত্রলীগকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আগামী নির্বাচনে কাজ করতে হবে।

    শোক সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্যে রাখেন,ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সদস্য মোস্তফা কামাল বাচ্চু, মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন আরজু, হারুন গফুর ভূইয়া, নুরুল ইসলাম, মোঃ আবু নোমান নাহিদ। আওয়ামী লীগ নেতা শামীম আহমেদ সুমন, মহানগর যুবলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন, আনিচ চৌধুরী রাজন,বেলাল উদ্দিন জুয়েল,বেলাল আহমেদ সরকার, আবু সুফিয়ান মাহমুদ,  সাবেক ছাত্রলীগ নেতা প্রকৌশলী মোঃ জাফর ইকবাল জনি ও অন্যান্যরা। শোক সভা শেষে আয়োজক কমিটির উদ্যোগে আগত কর্মী ও আসহায়দের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।
    প্রকাশিত শুক্রবার ০১ সেপ্টেম্বর ২০২৩