Header Ads

parkview
  • সর্বশেষ আপডেট

    ভাবিকে হত্যায় দেবরের যাবজ্জীবন


    কুষ্টিয়ায় বড় ভাইয়ের স্ত্রীকে হত্যার দায়ে শুকুর আলী নামে এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সেই সঙ্গে তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। সোমবার (৪ জুলাই) দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি শুকুর আলী আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
     
    যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত শুকুর আলী কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার চিলমারী ইউনিয়নের পশ্চিম চর রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত মোজাম্মেল হকের ছেলে। নিহত রওশানারা তার বড় ভাই আব্দুল জলিলের স্ত্রী।
     
    আদালত সূত্র জানায়, ২০১৩ সালের ২০ মার্চ সকালে শুকুর আলী বাথরুমে বসে তার মেয়ে বিথির কাছে পানি চান। সে পানি না দিলে শুকুর আলী অশ্রাব্য ভাষায় কথা বলেন বিথিকে। এ সময় তার ভাবি রওশনারার কাছে পানি চাইলে তিনিও অস্বীকৃতি জানায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে কোদাল দিয়ে রওশনারার মাথায় আঘাত করেন শুকুর। এতে ঘটনাস্থলেই রওশনারার মৃত্যু হয়। পরে স্থানীয়রা শুকুর আলীকে আটকে রেখে পুলিশে খবর দিকে পরে তাকে আটক করে পুলিশ। এ ঘটনায় রওশানারার ভাই আলী আজগার বাদী হয়ে দৌলতপুর থানায় হত্যা মামলা করেন।
     
    মামলার তদন্ত শেষে ২০১৩ সালের ২ অক্টোবর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। আদালত এই মামলায় ৯ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ৪ জুলাই রায় ঘোষণা করেন।

    কুষ্টিয়া আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী বলেন, হত্যা মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় শুকুর আলীকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রায় ঘোষণার সময় আসামি উপস্থিত ছিলেন।
    প্রকাশিত: সোমবার ৪ জুলাই ২০২২

    Post Top Ad

    Post Bottom Ad